নিরাপত্তা সম্মেলনে যোগ দিতে জার্মানির পথে প্রধানমন্ত্রী

কাগজ অনলাইন প্রতিবেদক: ৫৩তম মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলনে যোগ দিতে তিনদিনের সরকারি সফরে জার্মানির উদ্দেশে রওনা হয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আগামী ১৭-১৯ ফেব্রুয়ারি মিউনিখে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।

বৃহস্পতিবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) রাত ১০টা ৫ মিনিটে ইতিহাদ এয়ারলাইন্সের ইওয়াই-২৫৩ ফ্লাইটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ছাড়েন প্রধানমন্ত্রী।

- বিজ্ঞাপন -

পথে এক ঘণ্টার যাত্রাবিরতি করবেন আবুধাবিতে। শুক্রবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) জার্মান সময় ভোর ০৬টার দিকে মিউনিখ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছার কথা রয়েছে প্রধানমন্ত্রীর।

বিমানবন্দরে জার্মানিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ইমতিয়াজ আহমেদ ও জার্মান সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে স্বাগত জানাবেন।

বিমানবন্দর থেকে মোটর শোভাযাত্রা সহকারে বার্লিনের ম্যারিয়ট হোটেলে নিয়ে যাওয়া হবে প্রধানমন্ত্রীকে। সফরকালে এ হোটেলেই অবস্থান করবেন তিনি।

জার্মান সময় বিকেল আড়াইটার দিকে মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন প্রধানমন্ত্রী। একই দিন মিউনিখের মেয়র আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানেও যোগ দেওয়ার কথা রয়েছে শেখ হাসিনার।

মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলনে শনিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) ‘ক্লাইমেট অ্যান্ড হিউম্যান সিকিউরিটি’ শীর্ষক অধিবেশনে আলোচনায় অংশ নেবেন শেখ হাসিনা। এ অধিবেশনে ফিনল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট ও নরওয়ের প্রধানমন্ত্রীর অংশ নেওয়ার কথা রয়েছে।

মিউনিখ সম্মেলনে যোগ দেওয়ার ফাঁকে জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যারকেলের সঙ্গে শনিবার দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৈঠকে রোহিঙ্গা ইস্যু, বাণিজ্য, বিনিয়োগ, জলবায়ু পরিবর্তন ও অভিবাসনসহ দ্বিপক্ষীয় বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা হবে।

বৈঠক শেষে যৌথ ঘোষণাপত্র স্বাক্ষরিত হতে পারে।

শনিবার সন্ধ্যায় ঢাকার উদ্দেশে মিউনিখ ছাড়বেন প্রধানমন্ত্রী। আবুধাবিতে ৬ ঘণ্টার যাত্রাবিরতি করবেন তিনি। রোববার (১৯ ফেব্রুয়ারি) রাত ৮টায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছার কথা রয়েছে প্রধানমন্ত্রীর।

এবারই প্রথম এ সম্মেলনে আমন্ত্রণ পেয়েছে বাংলাদেশ। মিউনিখ নিরাপত্তা বিষয়ক শীর্ষ সম্মেলনে শতাধিক দেশের প্রতিনিধি যোগ দেবেন। জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস, ইউরোপীয় কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড টাস্ক, ন্যাটোর মহাসচিব জেন্স স্টোলেনবার্গ, ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট পেট্রো প্রোসেঙ্কো, আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট মোহাম্মাদ আশরাফ ঘানি, নরওয়ের প্রধানমন্ত্রী ইরিনা সোলবার্গ, হাঙ্গেরির প্রধানমন্ত্রী ভিক্টরন ওরবান, ইরাকের প্রধানমন্ত্রী হায়দার আল আবাদিসহ অন্যদের অংশ নেওয়ার কথা রয়েছে।

প্রধানমন্ত্রীর প্রেস উইং ও বুধবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলীর সংবাদ সম্মেলন থেকে এসব তথ্য জানানো হয়।