‘ফখরুলের ওপর হামলাকারীদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনা হবে’

কাগজ অনলাইন প্রতিবেদক: আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য এবং স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামের গাড়ীর বহরে হামলার ঘটনার সাথে জড়িতরা গণতন্ত্রের শত্রু। তারা যে দলেরই হোক তাদেরকে চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনা হবে।

এই গাড়িবহরে হামলার ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছেন তিনি বলেন, যারা এধরনের জঘণ্য কাজ করেছে তারা কোন দলের বন্ধু হতে পারে না। আওয়ামী লীগ এ কাজকে সমর্থন করে না। অতীতে শেখ হাসিনার উপর অসংখ্যবার হামলা হয়েছে। কিন্তু আওয়ামী লীগ প্রতিহিংসার রাজনীতি করে না।

- বিজ্ঞাপন -

মোহাম্মদ নাসিম আজ সোমবার রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওএ বয়সন্ধিকালীন স্বাস্থ্য সংক্রান্ত ২০১৭-২০৩০ মেয়াদী জাতীয় কৌশল অবহিতকরণ সভায় প্রধান অথিতির বক্তৃতায় একথা বলেন।

পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কাজী মোস্তফা সারোয়ারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে চিকিৎসা শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের সচিব সিরাজুল ইসলাম, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ, বাংলাদেশে নিযুক্ত নেদারল্যান্ডের রাষ্ট্রদূত লিওনি মার্গারেথা কুলিনেয়ার ইউনিসেফ এর প্রতিনিধি এডওয়ার্ড বেইবেদার ইউএনএফপিএর প্রতিনিধি ইউরি কাতো বক্তব্য রাখেন।

দেশের জনসংখ্যার এক পঞ্চমাংশ কিশোর-কিশোরী, এ তথ্য জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, জাতির ভবিষৎ নির্মাণ করতে হলে এই বৃহৎ জনগোষ্ঠীর সুস্বাস্থ্য ও সুশিক্ষা নিশ্চিত করতে হবে। তারা যেন যথাযথ পুষ্টি পায় তা নিশ্চিত করার পাশাপাশি তাদেরকে মাদক বা যে কোন নেশা থেকে দূরে থাকতে নিয়মিত পরামর্শ প্রদান করতে হবে।

বাল্যবিবাহ এবং অল্পবয়সে গর্ভধারণ কিশোরীদের স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ঝুঁকিপূর্ণ, একথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, বাল্যবিয়ে নিয়ে দেশে সচেতনতা বাড়ছে এ বিষয়ে কোন সন্দেহ নাই। সম্প্রতি দেখা গেছে দেশের বেশ কিছু জায়গায় মেয়েরা নিজেরাই নিজেদের অপ্রাপ্ত বযসের বিয়ে প্রতিরোধ করেছে। এই সচেতনতাবোধ আরো ছড়িয়ে দিতে হবে।

এদিকে দুপুরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নতুন ২ টি এমআরআই ও ১টি সিটি স্ক্যান মেশিন উদ্বোধন করেন।

এ সময়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, দেশের নতুন অত্যাধুনিক হাসপাতালগুলোর সিংহভাগই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আগ্রহে ও নির্দেশে গড়ে তোলা হয়েছে। তাঁরই নির্দেশে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালের নতুন ১৬ তলা ভবনের কাজ শীঘ্রই শুরু করা হবে।

ঢামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রি. জে. মিজানুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক, বিএমএ সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ সভাপতি ডা. ইকবাল আর্সলান বক্তব্য রাখেন।