ফরিদপুরে আ.লীগের দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত ১০

কাগজ অনলাইন প্রতিবেদক: ফরিদপুরের সালথায় আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষে ১০ জন আহত হয়েছে। সংঘর্ষ চলাকালে ৩টি বসতঘর ভাংচুর করা হয়েছে।

সোমবার (২০ মার্চ) সকাল ১১টার দিকে উপজেলার বল্লভদী ইউনিয়নের ফুলবাড়িয়া এলাকায় স্থানীয় সাংসদ সৈয়দা সাজেদা চৌধুরীর ছেলে আয়মন আকবর বাবলু চৌধুরীর সমর্থকদের সাথে উপজেলা আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক ও ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল ইসলামের সমর্থকদের মধ্যে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

- বিজ্ঞাপন -

সকাল ১০টার দিকে ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম মোটরসাইকেল যোগে ইউনিয়ন পরিষদে যাওয়ার সময় বাবলু চৌধুরীর সমর্থকরা তাকে ধাওয়া দেয়। এ সময় নুরুল ইসলাম দ্রুত গতিতে মোটরসাইকেল চালিয়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে প্রাণে রক্ষা পেলেও তার ভাই মো. মিরান মোল্যাকে হাতুড়ী দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে প্রতিপক্ষ। খবর পেয়ে নুরুল ইসলামের কয়েক’শ সমর্থক দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে প্রতিপক্ষের লোকজনকে ধাওয়া দিয়ে এলাকা ছাড়া করে। পরে উত্তেজিত লোকজন বাবলু চৌধুরীর সমর্থকের বাড়িতে হামলা চালিয়ে ৩টি বসতঘর ভাংচুর করে। হামলায় গুরুতর আহত মিরান মোল্যাকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সালথা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম আমিনুল হক বলেন, বল্লভদী ইউপি নরুল ইসলামের ভাইকে মারধর করে প্রতিপক্ষ। এ নিয়ে এলাকায় কিছুটা উত্তেজনা চলছিল। খবর পেয়ে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এলাকার পরিবেশ এখন শান্ত।