বিএনপির মুখে গণতন্ত্রের বুলি ভুতের মুখে রাম নাম : সেতুমন্ত্রী

কাগজ অনলাইন প্রতিবেদক: আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বিএনপির মুখে গণতন্ত্রের বুলিকে ভুতের মুখে রাম নাম হিসেবে আখ্যায়িত করে বলেছেন, তারা বহুদলীয় গণতন্ত্রের কথা বলে। ক্ষমতায় থাকাকালে তাদের বহুদলীয় গণতন্ত্র ছিল রাতের বেলায় কারফিউ আর দিনের বেলা খাল কাটা।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর ইউরো আসিয়ানো রমনা গ্রিন রেস্তোরায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী হলগুলোর ছাত্রলীগ নেত্রীদের সঙ্গে এক মতবিনিময় অনুষ্ঠানে তিনি এ সব কথা বলেন।

- বিজ্ঞাপন -

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচন তারা বর্জন করল গণতন্ত্র উদ্ধার করবে বলে। তখন তারা ১৬৫ জন মানুষকে পুড়িয়ে হত্যা করল। অগ্নিসংযোগ ও ভাঙচুর করে ধ্বংসাত্মক কর্মকাণ্ড চালালো। এর আগে হেফাজতের সমাবেশ দেখে খালেদা জিয়া গদ গদ হয়ে ঢাকাকবাসীকে তাতে যোগ দিতে আহ্বান জানালেন। এরপর বায়তুল মোকররমে মসজিদে আমরা আগুণ জ্বলতে দেখলাম। কোরআন শরীফ পুড়লো। এটা কি বিএনপির গণতন্ত্র? পেট্রোল বোমা দিয়ে মানুষ মারা কি তাদের গণতন্ত্র? তাদের গণতন্ত্র আসলে ম্যাজিকের তাস। কথায় কথায় রং বদলায়। কখনো বিবি, কখনো গোলাম।’

ভুল চিকিৎসায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রীর মৃত্যুর অভিযোগে হাসপাতালে ভাঙচুরের বিষয় তুলে ধরে ওবায়দুল কাদের বলেন, চিকিৎসকের জন্য রোগী মারা গেলে হাসপাতাল ভাঙচুর কেন? কেন অবরোধ হবে? একটা মৃত্যুর প্রতিবাদ করতে গিয়ে অবরোধে আটকা পড়া রোগী মারা গেলে তখন কি হবে? ডাক্তারের জন্য রোগী মারা গেলে শাস্তি পাবে ডাক্তার, হাসপাতালে কেন ভাঙচুর হবে? প্রতিবাদের নামে হাজার হাজার মানুষকে কষ্ট দেয়া চলবে না।’

ছাত্রলীগ নেতাদের উদ্দেশ্যে ওবায়দুল কাদের বলেন, ছাত্রলীগের নেতাদের মেধা, বুদ্ধি, যোগ্যতা, দক্ষতা দিয়ে আকর্ষণীয় হতে হবে। ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের এমন কিছু করা যাবে না যাতে শেখ হাসিনার সুনাম ক্ষুণ্ন হয়। ছাত্রলীগের দুই এক জনের খারাপ আচরণে শেখ হাসিনার উন্নয়ন, অর্জন যেনো নষ্ট না হয় সে দিকে লক্ষ্য রাখাতে হবে।

মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক সামছুন্নাহার চাপা, কার্যনির্বাহী সদস্য মারুফা আক্তার পপি, ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসাইন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি আবিদ আল হাসান, সাধারণ সম্পাদক মোতাহার হোসেন প্রিন্স প্রমুখ।