ভ্যাট আইন বাস্তবায়নে এনবিআর চেয়ারম্যানের ৭ নির্দেশনা

কাগজ অনলাইন প্রতিবেদক: নতুন ভ্যাট আইন বাস্তবায়নে সব কমিশনার ও মহাপরিচালককে সাত নির্দেশনা দিয়েছেন অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব ও জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমান।

মঙ্গলবার এনবিআরের সম্মেলন কক্ষে ‘বাজেট বাস্তবায়ন ফোরাম (বিআইএফ)’ এর ৩৩তম সভায় কাস্টমস, ভ্যাট এবং আয়কর বিভাগের সব কমিশনার ও মহাপরিচালককে তিনি এসব নির্দেশনা দেন।

- বিজ্ঞাপন -

এনবিআরের জ্যেষ্ঠ তথ্য কর্মকর্তা সৈয়দ এ মু’মেন বিষয়টি নিশ্চত করেছেন।

সভায় নজিবুর রহমান বলেন, নতুন ‘মূল্য সংযোজন কর ও সম্পূরক শুল্ক আইন, ২০১২’আগামী ১ জুলাই ২০১৭ থেকে বাস্তবায়ন করা হবে। এর ব্যত্যয়ের সুযোগ নেই। এ বিষয়ে ১৭ এপ্রিল সরকারের উচ্চ পর্যায়ের একটি সভায় ব্যবসায়ীবৃন্দ ও কর্মকর্তাদের উদ্দেশে অর্থমন্ত্রী সুস্পষ্টভাবে ঘোষণা দিয়েছেন। এ বিষয়ে কোনো সংশয় নেই। এজন্য অর্থমন্ত্রী এনবিআরের মাঠপর্যায়ের সব কার্যালয়কে এ বিষয়ে বিশেষভাবে সক্রিয় থাকার সদয় অনুশাসন ও নির্দেশনা প্রদান করেছেন।

তিনি আরো বলেন, অর্থমন্ত্রীর নির্দেশনা মোতাবেক আমাদেরকে নতুন আইন বাস্তবায়নের বিষয়টিকে সর্বাধিক গুরুত্ব প্রদানপূর্বক যথাযথ প্রস্তুতি গ্রহণ করতে হবে। এ বিষয়ে কোনো প্রকার শৈথিল্য ও উদ্যোগহীনতা কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য হবে না।

সাত নির্দেশনা হলো-

সব চেম্বার ও ব্যবসায়ী সংগঠনের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে নতুন আইনের বিষয়ে ব্যবসায়ীদের অধিকতর সচেতন করা এবং পর্যায়ক্রমে সব জেলা ও উপজেলায় প্রশিক্ষণ সম্পন্ন করা।

নতুন ভ্যাট আইন বিষয়ে সব কর্মকর্তা-কর্মচারীর জন্য অব্যাহতভাবে প্রশিক্ষণ কর্মসূচির আয়োজন।

অনলাইন ভ্যাট প্রকল্প কর্তৃক পরিচালিত কার্যক্রমকে সফল করা।

ভ্যাট আইনের কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা এবং ব্যবসায়ী ও সব অংশীজনকে বিশেষভাবে সেবা প্রদান নিশ্চিত করা।

বিভাগীয় জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের মাসিক উন্নয়ন সমন্বয় সভায় নিয়মিতভাবে নতুন ভ্যাট আইন বিষয়ে উপস্থাপনা প্রদান ও সব সরকারি-বেসরকারি দপ্তরের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ পার্টনারশিপ স্থাপন করা।

আয়কর, ভ্যাট ও শুল্ক বিভাগের সব কর্মকর্তা-কর্মচারীর নতুন ভ্যাট আইন বাস্তবায়নের ব্যাপারে সুসমন্বিত উদ্যোগ গ্রহণ করা এবং মাঠ পর্যায়ে ভ্যাট বিষয়ক অগ্রগতি সম্পর্কে সাপ্তাহিক ভিত্তিতে চেয়ারম্যানের কাছে সুপারিশসম্বলিত প্রতিবেদন পাঠানো এবং একই সময়ে সময়ে ডিজিটাল সম্মেলনের আয়োজন করা।