শাওনের চিঠি হাস্যকর ও ভিত্তিহীন

কাগজ অনলাইন প্রতিবেদক: জনপ্রিয় নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকী পরিচালিত ‘ডুব’ শিরোনামের সিনেমার শুটিং শেষে প্রিভিউ কমিটিতে জমা দেয়া হয়েছে।

ভারত-বাংলাদেশ যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত এ সিনেমায় গুণী অভিনয়শিল্পী ইরফান খানের বিপরীতে দেখা যাবে বাংলাদেশের জনপ্রিয় অভিনেত্রী নুসরাত ইমরোজ তিশাকে। কয়েকদিনের মধ্যে সিনেমাটি সেন্সর বোর্ডে জমা দেয়া হবে বলে প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান সূত্রে জানা গেছে।

- বিজ্ঞাপন -

সিনেমাটি সেন্সর বোর্ডে জমা হওয়ার আগেই পরিচালক-অভিনেত্রী মেহের আফরোজ শাওন সিনেমাটি নিয়ে সেন্সর বোর্ডে একটি চিঠি পাঠিয়েছেন। ‘ডুব’ সিনেমা নিয়ে শাওনের চিঠিকে উদ্ভট, হাস্যকর ও ভিত্তিহীন বলেছেন সিনেমার পরিচালক মোস্তফা সরয়ার ফারুকী।

এ প্রসঙ্গে ফারুকী বলেন, ‘আমি একটা গল্প বলেছি, যে গল্প প্রকাশিত কোনো উপন্যাস, গল্প, কবিতা বা জীবনী গ্রন্থ থেকে নিইনি। এটা একটি মৌলিক চিত্রনাট্য। এখানে একটি গল্প বলেছি। শুনেছি, এ গল্পের ব্যাপারে জনাবা মেহের আফরোজ শাওন অভিযোগ করেছেন- উনার পরিবার ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। আমার সিনেমায় শাওন নামে কোনো চরিত্র নেই। হুমায়ূন আহমেদ নামেও কোনো চরিত্র নেই। সেখানে তার পরিবার ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার প্রশ্নটা কিভাবে আসল আমি জানি না। এই চিঠি দেয়ার আইনগত কোনো এখতিয়ার আছে কি না আমি তাও জানি না। এ রকম যদি হয় এটা একটা প্রাগৈতিহাসিক ভূতুরে ব্যাপার হয়ে যাবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘আর এমন যদি হয় তা হলে দেখা গেল যে, কেউ একজন চিঠি দিল, এই সিনেমায় একটি বিবাহ দেখানো হয়েছে আমিও জীবনে একটি বিবাহ করেছি। সুতরাং সিনেমাটি আটকে দিন। আবার আরেকজন একটি চিঠি দিতে পারেন- এই সিনেমায় একটি প্রেম দেখানো হয়েছে। আমিও জীবনে একটি প্রেম করেছি সুতরাং সিনেমাটি আটকে দিন। এটা একটা উদ্ভট ব্যাপার। আপনি কিভাবে বুঝলেন, আপনার নাম নেই এতে, কোথাও কোনো বাস্তব চরিত্রের কোনো সর্ম্পক নেই। চরিত্রের নামেরও মিল নেই। পুরো ব্যাপারটা হাস্যকর ও ভিত্তিহীন মনে হচ্ছে।’

অনেক দিন আগে ‘ডুব’ সিনেমার শুটিং শেষ হয়েছে। মুক্তির জন্য সব প্রস্তুতিও প্রায় শেষ। এমন অবস্থায় গত বছরের ৪ নভেম্বর কলকাতার একটি শীর্ষ দৈনিক ‘হুমায়ূন আহমেদের চরিত্রে ইরফান? কিন্তু এত লুকোছাপা কেন’ শিরোনামে প্রকাশিত একটি খবরে পাল্টে যায় দৃশ্যপট। এরপর থেকে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে উঠে আসে ‘ডুব’ সিনেমাটি হুমায়ূন আহমেদের বায়োপিক।

এসব বিষয় নজরে নেয়ার জন্যই পরিচালক ও অভিনেত্রী শাওনের এই চিঠি। এ প্রসঙ্গে সেন্সর বোর্ডের সচিব মুন্সি জালাল উদ্দিন রাইজিংবিডিকে বলেন, “শাওন ম্যাডাম সেন্সর বোর্ডে পাঠানো চিঠিতে উল্লেখ করেছেন, ‘বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম মারফরত জানতে পারি ‘ডুব’ সিনেমা জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের জীবনী অবলম্বনে তৈরি করা হয়েছে। এতে পরিবারের কারো অনুমতি নেয়া হয়নি।’ তিনি বিষয়টি সেন্সর বোর্ড কর্তৃপক্ষের নজরে নেয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন।”

‘ডুব’ সিনেমার ইংরেজি নাম ‘নো বেড অব রোজেস’। এ সিনেমার মাধ্যমে প্রথম বাংলাদেশের কোনো সিনেমায় অভিনয় করেছেন বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেতা ইরফান খান। সিনেমায় তার সহ-শিল্পীরা হলেন পার্ণো মিত্র, রোকেয়া প্রাচী, ব্রাত্য বসু এবং নাদের চৌধুরী। সিনেমাটি বাংলাদেশের জাজ মাল্টিমিডিয়ার সঙ্গে যৌথভাবে প্রযোজনা করেছে ভারতের এসকে মুভিজ ও ইরফান খানের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান আইকে কোং।