সুপার ওভারে সুপার বুমরাহ

কাগজ স্পোর্টস ডেস্ক: টি-টোয়েন্টি মানেই ঠাসা উত্তেজনা, তাতে ম্যাচ টাই হলে তো সোনায় সোহাগা। কাল রাজকোটে আইপিএলে মুম্বাই ইন্ডিয়ানস বনাম গুজরাট লায়নসের ম্যাচে সেই পয়সা–উসুল উত্তেজনা উপভোগ করলেন দর্শকেরা। সুপার ওভারে শেষ পর্যন্ত গুজরাটকে হারিয়ে ৯ ম্যাচে সপ্তম জয় তুলে নিয়েছে মুম্বাই। কেবল কলকাতাই এখন পর্যন্ত ৯ ম্যাচের সাতটিতে জিতেছে।

জয়টা মুম্বাইয়ের প্রাপ্য ছিল। প্রথমে তাদের বোলারা দুর্দান্ত বোলিং করে গুজরাটকে আটকে ফেলেছিল ১৫৩ রানে। ৯৫ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে ফেলা গুজরাট শেষ পর্যন্ত শেষ ৪ উইকেটে ৫৮ রান যোগ করে। তাতে বড় অবদান আছে অ্যান্ড্রু টাইয়ের ১২ বলে ২৫ রানের ইনিংসটির, ম্যাচটা যাঁর শেষ হয়েছে চার বাঁচাতে গিয়ে কাঁধের হাড় নড়িয়ে ফেলে।

- বিজ্ঞাপন -

মুম্বাইয়ের ব্যাটসম্যানরাও শুরুটা এনে দিয়েছিলেন দারুণ। ১৬.১ ওভারে তাদের স্কোর ছিল ৪ উইকেটে ১২৭। ৬ উইকেট হাতে নিয়ে ২৩ বলে ২৭ রান লাগে—এই সহজ পথটাতেই গড়বড় করে ফেলল তারা। এই পথ হারানোর সবচেয়ে ভালো উদাহরণ হয়ে থাকল তাদের শেষ ওভারটা।

শেষ ওভারে দরকার ১১ রান। প্রথম বলে ক্রুনাল পান্ডিয়া হাঁকালেন ছক্কা। ৫ বলে ৫ রান দরকার, এই সমীকরণ মেলাতে না পেরে মুম্বাই তুলল ৪ রান। তাতেই ম্যাচ হয়ে গেল টাই। শেষ বলে ১ রান দরকার ছিল তাদের, তাহলেই আর সুপার ওভারে যেতে হয় না। সেটিই মেলাতে পারেনি মুম্বাই।

এই মানসিক ধাক্কা নিয়েই সুপার ওভার। সেখানেও থাকল এর ছাপ। জেমস ফকনারের করা ওভারটিতে প্রথম বলে ১, পরে দুই বলে চার ও ছক্কা। ৩ বলে ১১ তোলার পর টানা দুই বলে ফিরলেন পোলার্ড ও বাটলার। তিন বল খেলেই মুম্বাই সুপার ওভারে অলআউট!

জবাবে নো বল দিয়ে শুরু করা জসপ্রীত বুমরাহ এরপর তাঁর শীতল স্নায়ুর পরিচয় দিলেন আরও একবার। স্লোয়ার আর ইয়র্কারে বিভ্রান্ত করে রাখলেন ব্রেন্ডন ম্যাককালাম আর অ্যারন ফিঞ্চকে। তাতেই সুপার ওভারে মাত্র ৬ রান তুলতে পারল গুজরাট। এবারের আইপিএলের প্রথম সুপার ওভারে দুর্দান্ত জয় তুলে নিল মুম্বাই।