যশোরে অপহরণ-গুমের অভিযোগে ১৬ পুলিশের বিরুদ্ধে মামলা

আগের সংবাদ

ভারতে ১৮ মাসের শিশুকে ধর্ষণ

পরের সংবাদ

উত্তেজনাপূর্ণ ম্যাচে ঢাকা ডায়নামাইটসের জয়

প্রকাশিত হয়েছে: নভেম্বর ১৪, ২০১৭ , ৬:০২ অপরাহ্ণ | আপডেট: নভেম্বর ১৪, ২০১৭, ৬:০২ অপরাহ্ণ

ম্যাচের রং বদল হয়েছে ক্ষণে ক্ষণে। এক সময় খুলনা টাইটানসের দিকে জয়ের পাল্লাটা হেলে পড়লেও পরেক্ষণেই আবার ম্যাচে ফিরেছে ঢাকা ডায়নামাইটস। মিরপুর শের-ই-বাংলায় আজ দেখা গেল উত্তেজনাপূর্ণ স্নায়ুক্ষয়ী লড়াই। এই লড়াইয়ে জিতে গেল সাকিব আল হাসানের দল। তবে জয়ের জন্য ২০ তম ওভারের পঞ্চম বলটি পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হলো তাদের। পোলার্ডের হাফ সেঞ্চুরির পর অপরাজিত ৪৫ রান করে দলকে জয়ের বন্দরে নিয়ে গেলেন জহুরুল ইসলাম। তবে ঢাকার আসল নায়কের নাম পোলার্ড।

শুরুতেই ম্যাচ থেকে ছিটকে গিয়েছিল ঢাকা। ১৫৭ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ৪ রানেই এভিন লুইসকে মাহমুদ উল্লাহর ক্যাচে পরিণত করেন তরুণ পেসার আবু জায়েদ। ২ রানের ব্যবধানে আঘাত হানেন আরেক পেসার শফিউল ইসলাম। তার বলে ক্লিনজারের তালুবন্দি হন শহিদ আফ্রিদি। তার সংগ্রহ মাত্র ১ রান। এরপর আর্চারের বলে ২ রান করে ডেলপোর্ট বোল্ড হয়ে গেলে স্পষ্টতই চাপে পড়ে যায় ঢাকা।

ধনঞ্জয়ার বলে ৭ রান করে মাহমুদ উল্লাহর দুর্দান্ত ক্যাচে প্যাভিলিয়নে ফেরেন সুনিল নারাইন। খুলনা অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহর বলে আউট হওয়ার আগে ঢাকা অধিনায়ক সাকিবের সংগ্রহ ১৭ বলে ২০ রান। ৪১ রানে ৫ উইকেট নেই ঢাকার! কিন্তু এরপরেই খেলার মোড় ঘুরিয়ে দেন কায়রন পোলার্ড। শফিউলের দ্বিতীয় শিকার হওয়ার আগে ২৪ বলে ৩ চার ৬ ছক্কায় ৫৫ রান করে ভীতি ছড়ান তিনি। পোলার্ড আউট হলেও অন্যপ্রান্তে লড়াই করছিলেন জহুরুল ইসলাম। শেষ পর্যন্ত তিনি ৩৯ বলে ৫ বাউন্ডারিতে অপরাজিত ৪৫ রন করে দলকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন। তার সঙ্গী হিসেবে ১২ বলে ১৪ রানে অপরাজিত থাকেন মোসাদ্দেক হোসেন।

এর আগে আজ মঙ্গলবার রাজধানীর মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে দিনের প্রথম ম্যাচে টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে ৫ উইকেটে ১৫৬ রান তোলে খুলনা টাইটানস। দলীয় ২২ রানেই ঢাকা অধিনায়ক সাকিবের ঘূর্ণিতে মাইকেল ক্লিঙ্গারের (১০) উইকেট হারায় রিয়াদের দল। ৭ রানের ব্যবধানে খুলনার দূর্গে দ্বিতীয় আঘাত হানেন রনি-সাকিব জুটি। এবার আবু হায়দার রনির বলে উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান ধীমান ঘোষের (২) ক্যাচ নেন সাকিব।

নাজমুল হোসেন শান্তর ব্যাটে বেশ আত্মবিশ্বাস লক্ষ্য করা যাচ্ছিল শুরু থেকেই। তবে ইনিংসটা শেষ পর্যন্ত বড় হল না। ক্যারিবীয় ‘রহস্য’ স্পিনার সুনিল নারাইনের বলে ২৫ বলে ২৪ রান করে ফিরলেন এই তরুণ। খুলনার চতুর্থ উইকেটের পতন ঘটনা পাকিস্তানি স্পিনার শহিদ আফ্রিদি। তার বলে খুলনার সবচেয়ে বড় উইকেট অধিনায়ক মাহমুদ উল্লাহ (১৪) জহুরুলের তালুবন্দি হন।

রিয়াদকে হারিয়ে মহাবিপদে পড়ে যায় খুলনা টাইটানস। একপ্রান্ত আগলে রাখছিলেন রুশো। আবু হায়দারের দ্বিতীয় শিকার হয়ে ৩৪ রানে ফেরেন তিনি। কিন্তু খেলার মোড় ঘুরিয়ে দেন কার্লোস ব্র্যাথওয়েট। এই ক্যারিবিয়ান ৬ নম্বরে নেমে হাফ বিধ্বংসী হাফ সেঞ্চুরি কর খুলনা টাইটানসকে ভালো সংগ্রহ এনে দেন। শেষ পর্যন্ত ২৯ বলে ৬৪ রানে অপরাজিত থাকেন ব্র্যাথওয়েট। এই ঝড়ো ইনিংস খেলতে বাউন্ডারি মাত্র ৪টি মারলেও ছক্কা মেরেছেন ৬টি!

  • আরও পড়ুন
  • লেখকের অন্যান্য লেখা