Bhorer Kagoj logo
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৮ই জুলাই, ২০১৯ ইং | ৩রা শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৪ই জিলক্বদ, ১৪৪০ হিজরী

২৪ বছরে স্বাচিপ


প্রকাশঃ ২৪-১২-২০১৬, ৩:৪৪ অপরাহ্ণ | সম্পাদনাঃ ২৪-১২-২০১৬, ৩:৪৪ অপরাহ্ণ

sp20161224144056কাগজ অনলাইন ডেস্ক: ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের অনুসারী চিকিৎসকদের সংগঠন স্বাধীনতা চিকিৎসদ পরিষদ (স্বাচিপ) এর ২৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ। ১৯৯৩ সালের ২৪ ডিসেম্বর রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে এক সম্মেলনে মাত্র কয়েকজন চিকিৎসকের সমন্বয়ে এডহক কমিটি গঠনের মাধ্যমে স্বাচিপ আত্মপ্রকাশ করে। নানা চড়াই উৎরাই পেড়িয়ে আজ ২৪ বছরে পা দিল স্বাচিপ।

বর্তমানে স্বাচিপের সদস্য সংখ্যা ১৩ হাজারেরও বেশি। স্বাচিপের বর্তমান সভাপতি পদে অধ্যাপক ডা. এম ইকবাল আর্সলান ও মহাসচিব পদে অধ্যাপক ডা. মো. আবদুল আজিজ দায়িত্ব পালন করছেন।

স্বাচিপের ১৯৯৩ সালের গঠনতন্ত্রের মুখবন্ধে বলা হয়, ‘স্বাধীনতা অর্জনের ২৩ বছর পার হওয়ার পরও স্বাধীনতার প্রকৃত ইতিহাস বিকৃত, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা নিষ্প্রভ এবং মুক্তিযুদ্ধের বিপক্ষ শক্তি ক্ষমতা ও ক্ষমতার বাইরে পুনর্বাসিত। এ অবস্থায় মহান মুক্তিযুদ্ধে পেশাজীবিদের মধ্যে সর্বোচ্চ আত্মদানকারী চিকিৎসক সমাজ নিশ্চুপ বসে থাকতে পারে না।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আহ্বানে সাড়া দিয়ে বাঙালি জাতি যে স্বাধীনতা ছিনিয়ে এনেছিল তা সুসংহত করতে ও জনস্বাস্থ্য নিশ্চিতকরণসহ চিকিৎসকদের স্বার্থ সংরক্ষণের লক্ষ্যে মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের চিকিৎসকরা ‘স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ ’ গঠন করেছে।

স্বাধীনতা উত্তর বঙ্গবন্ধু সরকার জনগণের মৌলিক অধিকার চিকিৎসাকে সুনিশ্চিত ও সহজলভ্য করার লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ হিসেবে চিকিৎসকদেরকে প্রথম শ্রেণিতে উন্নীতকরণ, ইন সার্ভিস ট্রেইনি প্রথা প্রবর্তন, খানা স্বাস্থ্য প্রকল্প গঠন এবং জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণসহ অন্যান্য প্রকল্প গঠনের মাধ্যমে যুগান্তকারী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছিলেন। কিন্তু ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুর নৃংশস হত্যাকাণ্ডের পর স্বাস্থ্য ব্যবস্থা উন্নয়নের গতিধারা ব্যহত হয় ও চিকিৎসা পেশার মান ও মর্যাদা ক্ষুণ্ন হয়।

মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের চিকিৎসকরা ১৯৯৩ সালের ২৪ ডিসেম্বর রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে এক সম্মেলনের মাধ্যমে এডহক কমিটি গঠন করেন বলে মুখবন্ধে উল্লেখ করা হয়।’

আজ স্বাচিপের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর দিনে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে সভাপতি ডা. ইকবাল আর্সলান বলেন ‘গভীর দুঃখের সাথে জানাচ্ছি, আমাদের প্রিয় সহকর্মী ডা. সরোয়ার (ভোলা জেলা স্বাচিপ সভাপতি) এর স্ত্রী ও কন্যা ভোলা থেকে বরিশাল আসার পথে এক নৌ-দুর্ঘটনায় ইন্তেকাল করেছেন। (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইল্লাইহি রাজিউন)। আমরা তাদের মৃত্যুতে গভীরভাবে শোকাহত। আল্লাহ তাদেরকে বেহেস্ত নসিব করুন এবং শোকগ্রস্ত পরিবারকে এই শোক সইবার শক্তি দান করুন। বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ ব্যতিত স্বাচিপের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর সব কর্মসূচি স্থগিত করা হলো।



পাঠকের মতামত...

Top