Bhorer Kagoj logo
ঢাকা, রবিবার, ২৩শে জুলাই, ২০১৭ ইং | ৮ই শ্রাবণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ | ২৮শে শাওয়াল, ১৪৩৮ হিজরী

কালি ও কলম পুরস্কার পেলেন নওশাদ জামিল


প্রকাশঃ ২৮-০১-২০১৭, ৬:৪৭ অপরাহ্ণ | সম্পাদনাঃ ২৮-০১-২০১৭, ৬:৪৭ অপরাহ্ণ

10কাগজ অনলাইন প্রতিবেদক: কবি ও লেখক নওশাদ জামিল কবিতা বিভাগে ‘কালি ও কলম তরুণ কবি ও লেখক পুরস্কার’ পেয়েছেন। পাঁচ সদস্যের বিচারকমণ্ডলী ২০১৬ সালের কবিতা বিভাগে তাঁর রচিত ‘ঢেউয়ের ভেতর দাবানল’ গ্রন্থটিকে শ্রেষ্ঠ হিসেবে নির্বাচন করেছেন। গত বছর অমর একুশে গ্রন্থমেলায় বইটি প্রকাশিত হয়। বইটির প্রকাশক অন্যপ্রকাশ।

পুরস্কারের অর্থমূল্য এক লাখ টাকা, ক্রেস্ট ও সম্মানাপত্র। আাগামীকাল রবিবার বিকেল সাড়ে ৫টায় জাতীয় জাদুঘরের প্রধান মিলনায়তনে এ পুস্কার প্রদান করা হবে।

আয়োজকরা জানান, পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন কালি ও কলম সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি ‌ইমেরিটাস অধ্যাপক আনিসুজ্জামান। তাতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন। বিশেষ অতিথি থাকবেন বিশিষ্ট প্রাবন্ধিক ও রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন উপাচার্য চিন্ময় গুহ এবং বিশিষ্ট কথাসাহিত্যিক ইমদাদুল হক মিলন। অনুষ্ঠানের শেষ পর্বে শুভাশিস সিনহার কাব্যনাট্য দ্বিখণ্ডিতা পাঠাভিনয় করবেন ফেরদৌসী মজুমদার ও ত্রপা মজুমদার।

সাংবাদিকতার পাশাপাশি দীর্ঘদিন ধরে সৃজনশীল লেখালেখি করছেন নওশাদ জামিল। তাঁর প্রথম কাব্যগ্রন্থ ‘তীর্থতল’ প্রকাশিত হয় ২০১১ সালের বইমেলায়। বইটির প্রকাশক ঐতিহ্য। একই প্রকাশনী থেকে ২০১৪ সালে প্রকাশিত হয় তাঁর দ্বিতীয় কাব্যগ্রন্থ ‘কফিনে কাঠগোলাপ’। এ ছাড়া সম্পাদনা করেছেন ‘কহন কথা: সেলিম আল দীনের নির্বাচিত সাক্ষাৎকার’ (যৌথ) ও ‘রুদ্র তোমার দারুণ দীপ্তি’ (যৌথ) শিরোনামের দুটি বই ও পত্রিকা। তিনি এর আগেও ‘তীর্থতল’ কাব্যগ্রন্থের জন্য ভারতের পশ্চিম বঙ্গ থেকে পান ‘আদম সম্মাননা পুরস্কার ২০১২’। অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার জন্য পান ‘ইউনেস্কো-বাংলাদেশ জার্নালিজম অ্যাওয়ার্ড ২০১২’।

প্রতিশ্রুতিশীল কবি ও সাংবাদিক নওশাদ জামিলের জন্ম ময়মনসিংহের ভালুকায়। তাঁর শৈশব কেটেছে ভালুকার সিডস্টোর বাজার এলাকায়। প্রাথমিক ও মাধ্যমিক পড়াশোনা সেখানেই। তারপর চলে আসেন ঢাকায়, ভর্তি হন ঢাকা স্টেট কলেজে। উচ্চ মাধ্যমিকের পর পড়াশোনা করেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে, সরকার ও রাজনীতি বিভাগে। সেখান থেকেই স্নাতক ও স্নাতকোত্তর। তাঁর বাবা মকবুল হোসেন, মা প্রয়াত হামিদা খাতুন। তাঁর স্ত্রী খন্দকার কোহিনুর আখতার পেশায় বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের শিক্ষক ও মানবাধিকারকর্মী।

উল্লেখ্য, সাহিত্য শিল্প ও সংস্কৃতি বিষয়ক মাসিক পত্রিকা কালি ও কলম বাংলাদেশের তরুণদের সাহিত্যচর্চা ও সাধনাকে উদ্দীপিত করবার উদ্দেশ্যে ২০০৮ সাল থেকে ‘তরুণ কবি ও লেখক পুরস্কার’ প্রদান করে আসছে।



পাঠকের মতামত...

Top