Bhorer Kagoj logo
ঢাকা, সোমবার, ২৪শে জুলাই, ২০১৭ ইং | ৯ই শ্রাবণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ | ২৯শে শাওয়াল, ১৪৩৮ হিজরী

ভারতীয় ভিসা পেতে লাগবে না ই-টোকেন


প্রকাশঃ ০১-০২-২০১৭, ১২:৪৮ অপরাহ্ণ | সম্পাদনাঃ ০১-০২-২০১৭, ১২:৪৮ অপরাহ্ণ

VISA20170201090937কাগজ অনলাইন প্রতিবেদক: আজ থেকে ভারতে যাওয়ার নিশ্চিত টিকিটের (বিমান/সড়ক/রেল) বিপরীতে বাংলাদেশি পর্যটকদের ই-টোকেন লাগবে না।

ভ্রমণকারীরা যেকোনো ধরনের অ্যাপয়েন্টমেন্ট ছাড়াই সরাসরি ‘ট্যুরিস্ট ভিসা’ প্রাপ্তির সুবিধা পাবেন।

ভারতীয় হাইকমিশন সূত্র এ তথ্য জানিয়েছে। জানা গেছে, গত ২৯ জানুয়ারি হাইকমিশন এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই ঘোষণা দিয়েছিল।

জানা গেছে, পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী বুধবার থেকে বাংলাদেশের বিদ্যমান ৮টি ভিসা অ্যাপ্লিকেশন সেন্টারে (আইভিএসি) ভারতে যাওয়ার নিশ্চিত টিকিটসহ (বিমান/সড়ক/রেল) বাংলাদেশি ভ্রমণকারীদের সরাসরি ভিসা প্রাপ্তির স্কিমটি বর্ধিত করা হয়েছে। বাংলাদেশি ভ্রমণকারী যাদের নিশ্চিত ভ্রমণ টিকিট রয়েছে তারা কোনো অ্যাপয়েন্টমেন্ট ছাড়াই সরাসরি ট্যুরিস্ট ভিসা প্রাপ্তির সুবিধা পাবেন আইভিএসি-এর রাজশাহী, রংপুর, সিলেট, চট্টগ্রাম, খুলনা, যশোর, ময়মনসিংহ এবং বরিশাল শাখায়। ঢাকার আবেদনকারীরা তাদের নিশ্চিত ভ্রমণ টিকিট নিয়ে সরাসরি আইভিএসি মিরপুর শাখায় ট্যুরিস্ট ভিসার আবেদনপত্র জমা দিতে পারবেন।

এ ছাড়া বাংলাদেশি ভ্রমণকারী যারা সরাসরি ট্যুরিস্ট ভিসা পাওয়ার আশা করছেন, তাদের অবশ্যই ভারত যাওয়ার বিমান, রেল অথবা বাসের নিশ্চিত টিকিট (যথাযথ অপারেটর কর্তৃক ইস্যুকৃত) থাকতে হবে। ভ্রমণের তারিখ অবশ্যই আইভিএসিতে ভিসা আবেদনপত্র জমাদানের তারিখের এক মাসের মধ্যে হতে হবে। বিস্তারিত তথ্য www.ivacbd.com -এই ঠিকানায় পাওয়া যাবে।

এই প্রক্রিয়াটিকে ভারতের ভিসা প্রাপ্তি প্রক্রিয়া চলমান ও সহজীকরণের একটি ধারাবাহিক প্রচেষ্টা হিসেবে হাইকমিশন সূত্র জানিয়েছে।

২০১৬ সালের অক্টোবরে নারী ভ্রমণকারী ও তাদের পরিবারের সদস্যদের জন্য প্রথম সরাসরি ট্যুরিস্ট ভিসা স্কিম চালু করা হয় এবং পরে চলতি বছরের ১ জানুয়ারি এটি সকল বাংলাদেশি ভ্রমণকারীর জন্য বর্ধিত করা হয়। স্কিমটি বাংলাদেশি নাগরিকদের জন্য ভারতীয় ভিসা প্রাপ্তি সহজ করে দিয়েছে।

ভারতের নিশ্চিত টিকিটসহ (বিমান, সড়ক, রেল) কোনো বাংলাদেশি নাগরিকেরই ট্যুরিস্ট ভিসার জন্য ই-টোকেন/অনলাইন অ্যাপয়েন্টমেন্ট-এর প্রয়োজন নেই। এই প্রক্রিয়াটির মূল উদ্দেশ্য ভারত এবং বাংলাদেশের মানুষের মধ্যে যোগাযোগ দৃঢ় করা।



পাঠকের মতামত...

Top