Bhorer Kagoj logo
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৮ই জুলাই, ২০১৯ ইং | ৩রা শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৪ই জিলক্বদ, ১৪৪০ হিজরী

৩ লাখের বেশি নগদ লেনদেন নিষিদ্ধ হচ্ছে ভারতে


প্রকাশঃ ০১-০২-২০১৭, ৯:১৯ অপরাহ্ণ | সম্পাদনাঃ ০১-০২-২০১৭, ৯:২০ অপরাহ্ণ

indiaকাগজ অনলাইন ডেস্ক: ভারতে এপ্রিল থেকে তিন লাখ রুপি বা তার বেশি নগদ অর্থ লেনদেন করা যাবে না। কেন্দ্রীয় বাজেট প্রস্তাবে দেশটির অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলিএকথা বলেছেন।

দুর্নীতি এবং কর ফাঁকি রুখতেই নগদ লেনদেনের এ সীমা বেঁধে দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

বুধবার পার্লামেন্টে ২০১৭ সালের ইউনিয়ন বাজেট ঘোষণা করার সময় জেটলি বলেন, “এপ্রিল মাস থেকে এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে।” বিশেষ তদন্তকারী দল ‘এসআইটি’ এর প্রস্তাবের ভিত্তিতে সরকার এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলেও জানান তিনি।

কালো টাকা ও কর ফাঁকি ঠেকাতে কি ব্যবস্থা নেওয়া যায় এবং অবৈধভাবে বিদেশি ব্যাংক একাউন্টে পাচার হওয়া অর্থ দেশে ফেরত আনার উপায় বের করতে ভারতের সুপ্রিম কোর্ট এসআইটি গঠন করে।

এনডিটিভি জানায়, অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি এমবি শাহ নেতৃত্বাধীন এসআইটি কালো টাকা নিয়ন্ত্রণে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপের বিষয়ে সুপ্রিম কোর্টে পাঁচটি প্রতিবেদন জমা দিয়েছে।

ওই প্রতিবেদনগুলোতেই বলা হয়, নগদ অর্থ মারফত প্রচুর বেহিসাবী সম্পদ মানুষের হাতে এসেছে। নগদ লেনদেনের ক্ষেত্রে তাই সর্বোচ্চ সীমা বেঁধে দেওয়া প্রয়োজন।

অর্থমন্ত্রী জেটলি বলেন, এসআইটির পক্ষ থেকেই তিন লাখ বা তার বেশি অর্থ লেনদেনে নিষেধাজ্ঞা আরোপের পরামর্শ দেওয়া হয় এবং সরকার তা মেনে নিয়েছে।

দুর্নীতি দমনে নতুন বাজেটে আরও কয়েকটি উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এর একটি হচ্ছে, এখন থেকে উৎসের বর্ণনা না দিয়ে সর্বোচ্চ দুই হাজার রুপি দান করা যাবে। আগে যা ছিল, ২০ হাজার রুপি।

দুর্নীতি দমন ও কালো টাকা নিয়ন্ত্রণে গত বছর ৮ নভেম্বর ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী দেশটির সবচেয়ে বড় দুইটি নোট (৫০০ ও ১০০০ রুপির নোট) অচল ঘোষণা করেন।

ওই সময় দলগুলোকে বকেয়া বিল পরিশোধের ক্ষেত্রে কর প্রদাণ ছাড়াই ব্যাংকে অর্থ জমা দেওয়ার সুযোগ দেওয়া হয়েছিল।



পাঠকের মতামত...

Top