সেই দিনগুলোই আমার জীবনের শ্রেষ্ঠ সময় : সুজেয় শ্যাম

শনিবার, ২১ মার্চ ২০১৫

বহু কষ্টের মধ্য দিয়ে দিনগুলো কাটলেও আমি বলব স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের সঙ্গে কাটানো সেই দিনগুলোই আমার জীবনের শ্রেষ্ঠ সময়। ছোট্ট একটা রুমে আমরা সবাই কাজ করতাম। ওই একটা রুমেই গান, নাটক, সংবাদ পাঠ থেকে শুরু করে সবকিছু করা হতো। এয়ারকন্ডিশনের কথা তো তখন ভাবাই যায় না। তারপরও ফ্যান বন্ধ করে ঘণ্টার পর ঘণ্টা গরমের মধ্যে টানা কাজ করতাম আমরা স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের অন্যতম একজন নক্ষত্র সুজেয় শ্যাম। ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর বিজয়ের ঘোষণা হওয়ার পরপরই বেতারে বেজে ওঠে ‘বিজয় নিশান উড়ছে ওই’ গানটি। স্বাধীন বাংলার প্রথম এ গানটির সুরকার ও গায়ক তিনি। মুক্তযুদ্ধকালীন সময় এবং স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র নিয়ে কথা হয় সুজেয় শ্যামের সঙ্গে। আলাপকালে তিনি জানালেন, এ গান সৃষ্টি এবং স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের সঙ্গে কাটানো সেই দিনগুলোর কথা। স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে সুজেয় শ্যাম বললেন, নিজেকে সে সময়কার স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের অংশ হিসেবে ভাবতে সত্যি গর্ব হয় আজ।

প্রতিদিনের মতো ১৬ ডিসেম্বরও গান করতে বসেছিলাম আমরা। হঠাৎ করেই আমাদের বলা হলো বিজয়ের গান করতে হবে। তাৎক্ষণিক শহীদুল ইসলাম গান লেখা শুরু করলেন। তারপর গানটি সুর করে সন্ধ্যায় রেকর্ড করা হলো। সৈয়দ নজরুল ইসলাম স্বাধীনতা ঘোষণা করার ঠিক পরই বেজে উঠল ‘বিজয় নিশান গানটি।’

স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের দিনগুলো সম্পর্কে তিনি আরো বলেন, বহু কষ্টের মধ্য দিয়ে দিনগুলো কাটলেও আমি বলব স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের সঙ্গে কাটানো সেই দিনগুলোই আমার জীবনের শ্রেষ্ঠ সময়। ছোট্ট একটা রুমে আমরা সবাই কাজ করতাম।

ওই একটা রুমেই গান, নাটক, সংবাদ পাঠ থেকে শুরু করে সবকিছু করা হতো। এয়ারকন্ডিশনের কথা তো তখন ভাবাই যায় না। তারপরও ফ্যান বন্ধ করে ঘণ্টার পর ঘণ্টা গরমের মধ্যে টানা কাজ করতাম আমরা। একটা মাইক্রোফোনের চারপাশে গোল হয়ে দাঁড়িয়ে গান করতাম সবাই। আর সঙ্গে বাদ্যযন্ত্র হিসেবে থাকত

হারমোনিয়াম আর তবলা। নিজেদের এ অর্জন সম্পর্কে সুজেয় শ্যাম বলেন, স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র ছিল যুদ্ধের এক অন্যতম মাধ্যম। আমরা অনেকেই এর মাধ্যমে যুদ্ধ করেছি। আমাদের তার বিনিময়ে কিছু পাওয়ার আশা কোনোদিনই ছিল না। তবে সরকারের কাছে শুধু একটাই দাবি থাকবে- স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের অনুষ্ঠান ও গানগুলোকে সংরক্ষণ করার ব্যবস্থা করা হোক।

:: মেলা প্রতিবেদক

মেলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj