বিদ্যুৎ উৎপাদনের অনুমোদন পেল কনফিডেন্স সিমেন্ট

শনিবার, ২০ মে ২০১৭

কাগজ প্রতিবেদক : নতুন প্ল্যান্টে বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে যাচ্ছে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত সিমেন্ট খাতের কোম্পানি কনফিডেন্স সিমেন্ট লিমিটেড।

এ বিষয়ে ইতোমধ্যে বাংলাদেশ পাওয়ার ডেভেলপমেন্ট বোর্ড (বিপিডিবি) কোম্পানিটিকে লেটার অব ইনট্যান্ট (এলওআই) প্রদান করেছে। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। রংপুর ও বগুড়ায় কোম্পানিটিকে এইচএফও পাওয়ার জেনারেশন ফ্যাসিলিটি অনুমোদন দেয়ার প্রাথমিক কাজ সম্পন্ন করেছে। এখন কনফিডেন্স সিমেন্টের সঙ্গে বিপিডিবির চুক্তি হওয়ার পরপরই কোম্পানিটি বাণিজ্যিক উৎপাদনে যেতে পারবে।

এলওআই প্রদান করার ৩০ দিনের মধ্যে চুক্তি সম্পন্ন হয়। আর এই চুক্তি হওয়ার পর ১৮ মাসের মধ্যে কোম্পানিটি বাণিজ্যিক উৎপাদনে যেতে পারবে।

বিপিডিবির সঙ্গে ডোরিন পাওয়ারের এই পাওয়ার পার্চেজ এগ্রিমেন্ট (পিপিএ) ১৫ বছরের জন্য হবে বলে কোম্পানির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। জানা যায়, বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলোর মধ্যে রংপুর বিদ্যুৎকেন্দ্রটি হবে ১১৩ মেগাওয়াট ক্ষমতার।

এখান থেকে সরকার প্রতি ইউনিট ৮ টাকা ২০ পয়সা দরে বিদ্যুৎ কিনবে। আর ১১৩ মেগাওয়াট ক্ষমতার বগুড়া বিদ্যুৎকেন্দ্র থেকে সরকার বিদ্যুৎ নেবে ৮ টাকা ২৪ পয়সায়। আর কনফিডেন্স সিমেন্ট ও কনফিডেন্স স্টিল লিমিটেডের যৌথ উদ্যোগে এ বাণিজ্যিক উৎপাদন শুরু হবে।

যেখানে কনফিডেন্স সিমেন্টের মালিকানা ৫১ শতাংশ। আর কনফিডেন্স স্টিলের মালিকানায় থাকবে ৪৯ শতাংশ। উল্লেখ্য, ২০১৮ সাল নাগাদ উৎপাদন শুরুর লক্ষ্যমাত্রা বেঁধে দিয়ে ফার্নেস অয়েলভিত্তিক ১০টি বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের দরপত্র আহ্বান করে বিপিডিবি।

২০১৫ সালে ডলারের বিপরীতে ৭৮ টাকা ৬৬ পয়সা বিনিময় হার ধরে প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের দর ১০ দশমিক ৪৩ সেন্ট ধার্য করা হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে ডলারের বর্তমান বিনিময় হার হিসাব করে দর প্রস্তাব করে দেশি ও বিদেশি বেশ কয়েকটি কোম্পানি।

অর্থ-শিল্প-বাণিজ্য'র আরও সংবাদ