Warning: include(../dfpbk1.php): failed to open stream: No such file or directory in /home/bhorerk/public_html/print-edition/wp-content/themes/bkprint/single.php on line 4

Warning: include(): Failed opening '../dfpbk1.php' for inclusion (include_path='.:/usr/lib/php:/usr/local/lib/php') in /home/bhorerk/public_html/print-edition/wp-content/themes/bkprint/single.php on line 4
প্রজন্মকে টানছে কতখানি নজরুলের সুর ও বাণী?

প্রজন্মকে টানছে কতখানি নজরুলের সুর ও বাণী?

শনিবার, ২০ মে ২০১৭

কাজী নজরুল ইসলাম কারো কাছে বিদ্রোহের কবি, কারো কাছে প্রেমের কিংবা তারুণ্যের কবি। নজরুলের রচনায় এসব কিছুই প্রমাণ মেলে। কবি নজরুলের বিভিন্ন দিক বিভিন্ন মানুষকে আলোড়িত কিংবা আন্দোলিত করেছে। কিন্তু এ ডিজিটাল যুগে তরুণদের কতটা টানতে পারছে নজরুলসঙ্গীত? তরুণরা নজরুলসঙ্গীত শিখতে কতখানি আগ্রহী? সময় ও কালের ব্যবধানে নজরুল কি এখনকার প্রজন্মের কাছে দুর্বোধ্য? এ বিষয়গুলোর পাশাপাশি নজরুলসঙ্গীত চর্চার আরো অনেক বিষয় নিয়ে মতামত ব্যক্ত করেছেন প্রখ্যাত কয়েকজন নজরুলসঙ্গীত শিল্পী। আয়োজনটি সাজিয়েছেন- শ্রাবণী হালদার

যে গান দিয়ে মনপ্রাণ ভরে দেয়া যায় তা কম লোকই গাইছে : সুজিত মোস্তফা

বর্তমানে তরুণদের মধ্যে নজরুল চর্চার আগ্রহ নিয়ে জানতে চাইলে নজরুলসঙ্গীত শিল্পী সুজিত মোস্তফা বলেন, নজরুলচর্চায় তরুণদের আগ্রহ খুব যে আশাব্যঞ্জক তা বলব না। বিভিন্ন গানের স্কুল আছে সেসব স্কুলে সঙ্গীত শিক্ষার আলাদা আলাদা ফরম্যাট আছে যেমন রবীন্দ্রসঙ্গীত, নজরুলসঙ্গীত, লোকগান, আধুনিক গান। শিক্ষার্থীরা গান শেখার জন্য যে কোনো একটি ফরম্যাট হয়তো বেছে নিচ্ছে। গান শিখতে হয় তাই শিখছে। কিন্তু ভালোবেসে নজরুলের গান গাওয়া, নজরুলকে সত্তায় ধারণ করা- এ দিকটা তেমন আশানুরূপ নয়। যে গান দিয়ে মনপ্রাণ ভরে দেয়া যায় তা খুব কম লোকই গাইছে। নজরুলচর্চার ক্ষেত্রে শুদ্ধতা নিয়ে কথা বলতে গিয়ে তিনি জানান, শুদ্ধতা আমরা চাই। যতটা শুদ্ধতার নজর স্বরলিপির দিকে দেয়া হচ্ছে গায়কী ততটা প্রতিষ্ঠিত হচ্ছে না। শ্রোতার কাছে যা ভালোলাগে তাই শোনে। পরে প্যাটার্ন বোঝে। আগে ভালোলাগা। সে জায়গা তৈরি করা দরকার। সিনিয়র অনেক শিল্পীর মধ্যে রক্ষণশীল মানসিকতা রয়েছে। গায়কী স্বাধীনতা নেয়ার অধিকার সবার নেই ফলে তরুণদের মধ্যে এটা এক্সপ্লেয়ার করার স্বাধীনতা তৈরি হচ্ছে না। গান হচ্ছে, নতুন নতুন অ্যালবাম আসছে। কিন্তু বিক্রি কতটা হচ্ছে এটা দেখার বিষয়। আসলে যতটা ভালো হলে শ্রোতারা অ্যালবাম কিনবে টিক ততটা ভালো হচ্ছে না। নজরুলের গান গাওয়া বেশ কঠিন। সবাই কেবল শুদ্ধতার কথাই বলে যাচ্ছে। আমি লক্ষ করেছি, এখনকার অনেক গানই পুরোপুরি অরিজিনাল রেকর্ডের সঙ্গে মিলছে না। তবুও যতটা পারা যায় শুদ্ধ রাখার চেষ্টা করা হচ্ছে।

তরুণদের এখনো অনেক পথ পাড়ি দিতে হবে : ফেরদৌস আরা

এ প্রজন্মের নজরুলচর্চার বিষয়টির গভীরতা জানতে চাইলে নজরুলসঙ্গীত শিল্পী ফেরদৌস আরা বলেন, যুগের বিবর্তনে যেমন বেড়েছে যান্ত্রিকতা; তেমনি বেড়েছে জটিলতা আর ব্যস্ততা। এ কারণে দেখা দিচ্ছে সময়ের প্রচণ্ড অভাব। আর সময়ের অভাবে এ প্রজন্ম চাইলেও প্রয়োজনমতো চর্চা করতে পারছে না। আমাদের সময়ে আমরা সঙ্গীতচর্চার বিষয়ে বেশি সময় পেয়েছি। তবে ছিল না এত সহজে সঙ্গীত শেখার পরিবেশ। ছিল না সামাজিক স্বীকৃতি আর শুদ্ধ নজরুলচর্চার উপকরণ। তাই তরুণদের গুণগত মানের যে সমস্যা সেটিকে আমি যুগের বিবর্তনের ফসল মনে করি। তারপরও ভালো করতে হলে অবশ্যই তাদের চর্চা করতে হবে। বাংলাদেশের নজরুলচর্চায় নবীনদের অংশগ্রহণ সম্পর্কে তিনি বলেন, সংখ্যাগত দিক থেকে নবীনদের অংশগ্রহণ সত্যিই চোখে পড়ার মতো। এদিক থেকে তাদের স্বতঃস্ফ‚র্ততা সন্তোষজনক। ওদের প্রচেষ্টায় নজরুলসঙ্গীতের প্রচার ও প্রসার এমনকি মান অনেক উঁচুতে গিয়ে পৌঁছাবে। তবে তরুণদের এখনো অনেক পথ পাড়ি দিতে হবে। তারা একটু সচেতন হয়ে চর্চাটা করলেই ভালো ফল পাবে অনায়াসেই। আমি নজরুলসঙ্গীতের শুদ্ধ সুর আর শুদ্ধ বাণী শিক্ষাদানের উদ্দেশ্যে কাজ করার চেষ্টা করছি। বিশুদ্ধ নজরুলসঙ্গীত ধারণকারী একটি আগামী প্রজন্ম গড়ে তোলার স্বপ্ন থেকে প্রতিষ্ঠা করেছি গানের স্কুল ‘সুরসপ্তক’। আমি মনে করি আমার সুরসপ্তকের শিক্ষার্থীরা আগামী দিনে নজরুলসঙ্গীতের ধারক, বাহক হবে। এছাড়াও আরেকটি বড় কর্মসূচি হাতে নিয়েছি। নজরুলের শুদ্ধ বাণী ও সুরে একক কণ্ঠে হাজার গান নিয়ে গবেষণা এবং তা রেকর্ড করার কাজ করছি। ইতোমধ্যে ফেরদৌস আরা তার একককণ্ঠে হাজার গানের বেশ কয়েকটি খণ্ড প্রকাশ করেছেন। ফেরদৌস আরা বলেন, এ কাজটি আমি নিরলসভাবে করে যাচ্ছি। কারণ একজন নজরুলসঙ্গীত শিল্পী হিসেবে এ কাজটি করা আমার দায়িত্ব বলে মনে করি। এটাও ঠিক, নজরুলসঙ্গীত করেই আমার সঙ্গীত ক্যারিয়ার প্রস্ফুটিত হয়েছে। তাই যতটুকু পারি নজরুলকে বিশ্বব্যাপী সমাদৃত করার প্রয়াসে কাজ করে যাব। আমার এই প্রয়াস আমৃত্যু অব্যাহত থাকবে।

নতুন প্রজন্মের মধ্যে সাধনা করার প্রবণতা কম : শাহীন সামাদ

নতুন প্রজন্মের মধ্যে নজরুলসঙ্গীত শেখার প্রবণতা এবং শুদ্ধভাবে তা গাওয়ার চর্চাসহ বিভিন্ন বিষয়ে কথা বললেন নজরুলসঙ্গীত শিল্পী শাহীন সামাদ। জানালেন নজরুলের গানের সঙ্গে তার সম্পৃক্ততার নানান কথাও। শাহীন সামাদ বললেন, আমাদের সময়ের সঙ্গে নতুন প্রজন্মের নজরুলসঙ্গীত যারা গায় তাদের মূল পার্থক্য হলো সাধনায়। নজরুলসঙ্গীত গাওয়ার জন্য অনেক সাধনার দরকার হয়। নতুন প্রজন্মের শিল্পীদের প্রতি অনুযোগ প্রকাশ করে শাহীন সামাদ বলেন, সত্যিই নজরুলকে ভালোবাসলে তার গান গাওয়ার জন্য দীর্ঘদিনের সাধনার দরকার। নতুন প্রজন্মের মধ্যে এই সাধনা করার প্রবণতা কম। যারা নজরুল সঙ্গীত গায় তাদের কাছে আমাদের প্রত্যাশা তারা যেন এর জন্য কঠোর সাধনা করে। তবে আশার কথাও শোনান তিনি। বলেন, অনেক নতুন ছাত্রছাত্রী নজরুলসঙ্গীত শিখছে। নজরুলসঙ্গীত অনেক কারুকার্যময়, শেখাটা আসলে অনেক কঠিন। এ জন্য আগে ছাত্রছাত্রী কম আসত। তবে এখন অনেকেই আসছে। তারা অনেক সুন্দর গাইছে। নজরুলসঙ্গীতের সুরের ক্ষেত্রে নতুন প্রজন্মের গায়কদের মধ্যে কোনো বিচ্যুতি লক্ষ করেন কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে শাহীন সামাদ বলেন, আমাদের সময়ে আমরা স্বরলিপি পেতাম। সে অনুযায়ী নজরুলসঙ্গীত শিখতাম। সাত আট বছর ধরে নজরুল ইনস্টিটিউট স্বরলিপি করছে। তারা তিন হাজারের মতো সঙ্গীতের স্বরলিপি করেছে। যারা নজরুলসঙ্গীত শেখাচ্ছেন তারা যেন এই স্বরলিপি সংগ্রহ করে তা শেখান। তাছাড়া বিভিন্ন জেলায় নজরুলসঙ্গীত গাওয়ার ক্ষেত্রে আঞ্চলিক উচ্চারণের একটা সমস্যা দেখা যায় উল্লেখ করে তিনি বলেন, এগুলো ঠিক করে নিতে হবে।

মেলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj

Warning: fopen(../cache/print-edition/2017/05/20/222bf917e22eb0d1dd38b364dee37657.php): failed to open stream: No such file or directory in /home/bhorerk/public_html/print-edition/wp-content/themes/bkprint/single.php on line 218

Warning: fwrite() expects parameter 1 to be resource, boolean given in /home/bhorerk/public_html/print-edition/wp-content/themes/bkprint/single.php on line 219

Warning: fclose() expects parameter 1 to be resource, boolean given in /home/bhorerk/public_html/print-edition/wp-content/themes/bkprint/single.php on line 220