মানুষের কল্যাণ করাই সব ধর্মের আসল কাজ : প্রধান বিচারপতি

শনিবার, ২০ মে ২০১৭

বাঁশখালী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি : প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিন্হা বলেছেন, ধর্ম পূজা করার জন্য নয়, মানুষের কল্যাণের জন্য। আপনারা মানুষের কল্যাণের জন্য কাজ করে যাবেন। মানুষের সেবা বা কল্যাণ করাই সব ধর্মের আসল কাজ। গতকাল শুক্রবার দুপুরে বাঁশখালীর কোকদন্ডী ঋষিধামে ৩ দিনব্যাপী শ্রী অদ্বৈতানন্দপুরী মহারাজের ১১৫তম আবির্ভাব উপলক্ষে শ্রী গুরুমন্দিরের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ১৯৭১ সালে আমরা স্বাধীনতাযুদ্ধ করেছিলাম। সারা পৃথিবিতে কোনো মুক্তিযুদ্ধে এত প্রাণ দিতে হয়নি। মাত্র ৯ মাসে ৩০ লাখ মানুষকে জীবন দিতে হলো। সেই যুদ্ধে হিন্দু, মুসলিম, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান সবাই ঝাঁপিয়ে পড়েছিল। সেখানে কিন্তু কোনো ভেদাভেদ ছিল না। মাঝে কিছু স্বার্থান্বেষী মহল দেশের স্বাধীনতাকে ভুলুণ্ঠিত করতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করে। একটি মহল সাম্প্রদায়িক সম্প্রতি বিনষ্ট করছে।

প্রধান বিচারপতি বলেন, এ ঋষিধামে অনেক জমি রয়েছে, সেই জমিতে আপনারা চাষাবাদ করবেন। এখানে আমি আজ কাঁঠাল, লিচু খেলাম। আমার খুব ভালো লাগল। এ প্রতিষ্ঠানে কম্পিউটার প্রশিক্ষণ সেন্টার, বিনা চিকিৎসা কেন্দ্র চালু করলে এলাকার হাজার হাজার বেকার যুবকের কর্মসংস্থান হবে। সমাজ সেবামূলক কাজে জনগণকে উদ্বুদ্ধ করবেন। তিনি আরো বলেন, এটা একটা মুসলিম প্রধান দেশ। প্রতি শুক্রবার জুমার নামাজের সময় বাদ্য-বাজনা বাজাবেন না। সহনশীলভাবে প্রত্যেক ধর্মের মানুষ বসবাস করবেন। কারো যাতে ক্ষতি না হয়, সেদিকে খেয়াল রাখবেন।

তিনি মসজিদের ইমামদের আহ্বান জানিয়ে বলেন, জুমার নামাজের খুতবা পড়ার সময় জঙ্গি সম্পর্কে ধারণা দেবেন। আপনারা খেয়াল রাখবেন, কিছু জঙ্গিপন্থী মানুষ আছে যারা মসজিদে ধর্মের নামে হিংসাত্মক কথা বলে সাধারণ মানুষকে বিভ্রান্ত করছে, তাদের সামাজিকভাবে প্রতিরোধ করবেন। আশপাশের পাহাড়ে অপরিচিত লোক যদি বসবাস করে, তাহলে স্থানীয় প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে অবগত করবেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন- স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী, চট্টগ্রাম জেলা বিজ্ঞ দায়রা জজ মো. হেলাল চৌধুরী, বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের অতিরিক্ত রেজিস্ট্রার অরুনাভ চক্রবর্তী, বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের সাবেক সভাপতি এডভোকেট সুব্রত চৌধুরী।

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন- মহানগর দায়রা জজ মোহাম্মদ শাহেনুর, চট্টগ্রাম চিফ জুড়িশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মুন্সি মশিয়ার রহমান, চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট এ কিউ এম নাসির উদ্দীন, অতিরিক্ত জেলা দায়রা জজ নুরুল ইসলাম, অর্থঋণ আদালতের জজ মো. আবু হান্নান, বাঁশখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী মো. চাহেল তস্তরী, বাঁশখালী উপজেলার সিনিয়র সহকারী জজ শফিউদ্দীন, সিনিয়র জুড়িশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সাজ্জাদ হোসেন, চট্টগ্রাম জজ আদালতের প্রশাসনিক কর্মকর্তা গোবিন্দ প্রসাদ দাশ, জেলা আওয়ামী লীগের শ্রম-বিষয়ক সম্পাদক মো. খোরশেদ আলম, এডভোকেট অনুপম বিশ্বাস, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক আবদুল গফুর, বাঁশখালী আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও নবনির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যান এড. আ ন ম শাহাদত আলম, উপজেলা পূজা পরিষদের সভাপতি প্রদীপ গুহু প্রমুখ।

শেষ পাতা'র আরও সংবাদ