টাইগাররা উড়িয়ে দিল আইরিশদের

শনিবার, ২০ মে ২০১৭

ক্রীড়া প্রতিবেদক : আইরিশদের বিপক্ষে জয়টা অত্যাবশ্যকীয় ছিল টাইগারদের জন্য। কোনো কারণে হেরে গেলে র‌্যাংকিংয়ে অষ্টমে পৌঁছানোর সম্ভাবনা তৈরি হতো। গতকাল আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ৮ উইকেটের বিশাল জয়ে শঙ্কা মুক্ত হয়েছে মাশরাফি বাহিনী। ত্রিদেশীয় সিরিজে নিজের হারানো ছন্দ ফিরে পেয়েছেন মোস্তাফিজুর রহমান। গতকাল তার বোলিং নৈপুণ্যে ৪৬.৩ ওভারে মাত্র ১৮১ রানেই স্বাগতিকদের থামিয়ে দেয় বাংলাদেশ। ১৮২ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ২৭.২ ওভারে মাত্র ২ উইকেট হারিয়ে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় লাল সবুজের প্রতিনিধিরা। টাইগারদের ওপেনিং জুটিতে তামিম ইকবাল ও সৌম্য সরকারের ব্যাট থেকে আসে ৯৫ রান। ৫৪ বলে ৬টি চারসহ ৪৭ রানের ইনিংস খেলে তামিম সাজঘরে ফিরলেও সৌম্য দেখান ব্যাটিং ঝলক। সাব্বির রাহমানকে সঙ্গে নিয়ে ক্যারিয়ারের ষষ্ঠ অর্ধশতক তুলে নেন তিনি। সৌম্য-সাব্বিরের গড়েন ৭৬ রানের জুটি। জয়ের জন্য ১১ রান দূরে থাকতে ব্যক্তিগত ৩৫ রান করে আউট হন সাব্বির। পরে মুশফিকুর রহিমকে সঙ্গে নিয়ে বাকি পথটুকু পারি দেন বাঁ-হাতি ওপেনার সৌম্য। শেষ পর্যন্ত ৬৮ বলে ১১ চার ও ২ ছয়সহ ৮৭ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেন সরকার। এর আগে মোস্তাফিজ-সানজামুল-মাশরাফিদের বোলিং তোপে বেসামাল আইরিশ ব্যাটসম্যানদের মধ্যে সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত রান ৪৬ করতে সমর্থ হন ক্রিস্টোফার জয়সি। ৭৪ বল থেকে ৩টি চারের সাহায্যে এ রান করেন। স্বাগতিকদের এ রকম নাস্তানাবুদ করার ক্ষেত্রে মূল ভূমিকা পালন কনেছেন কাটার মাস্টার মোস্তাফিজুর রহমান। তিনি ৯ ওভার বল করে ২৩ রান দিয়ে ৪ উইকেট তুলে নেন। এ ছাড়া মাশরাফি বিন মর্তুজা ও সানজামুল ইসলাম ২টি করে এবং মোসাদ্দেক হোসেন ও সাকিব আল হাসান একটি করে উইকেট পান।

টসে জিতে প্রথমে বল করার সিদ্ধান্ত নেন অধিনায়ক মাশরাফি। গতকাল টাইগারদের পেস অ্যাটাক ছিল দুর্দান্ত। বোলিংয়ে এসে নিজের প্রথম ওভারেই উইকেট তুলে নেন বাংলাদেশের কাটার মাস্টার। রানের খাতা খোলার আগেই উইকেট হারিয়ে শুরু থেকেই চাপে পড়ে আয়ারল্যান্ড। পুরো ম্যাচে এই চাপ আর কাটিয়ে উঠতে পারেনি তারা। এরপর জয়সি এবং পোর্টারফিল্ড মিলে কিছুটা প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু বোলিংয়ে এসেই পোর্টারফিল্ডকে ফেরান মোসাদ্দেক হোসেন। এর আগের ওভারে মাশরাফির বলে পোর্টারফিল্ডের তোলা ক্যাচ অবশ্য মিস করেন মোসাদ্দেক। পরের ওভারে এসে সেই প্রায়শ্চিত্যই হয়তো করেন তিনি। আইরিশদের দলীয় ৬১ রানে বালবিরনিকে ফেরান সাকিব। এ সময় নেইল ও’ব্রায়েন নেমে জয়সিকে সঙ্গে নিয়ে ভালো খেলতে থাকেন। তাদের ৫৫ রানের এ জুটি ভাঙেন দ্য ফিজ। ব্যক্তিগত ৩০ রানে নেইল ও’ব্রায়েনকে তামিমের ক্যাচ বানান তিনি। এর কিছুক্ষণ পর দীর্ঘক্ষণ ধরে টিকে থাকা জয়সিকে ফেরান সানজামুল। পরবর্তীতে মোস্তাফিজুর রহমানের জোড়া আঘাত এবং সানজামুল ও মাশরাফি একটি করে উইকেট তুলে নেয়ায় ১৮১ রানেই থেমে যায় আয়ারল্যান্ডের ইনিংস।

প্রথম পাতা'র আরও সংবাদ