ঢাকায় ভারতের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা এনআইএ : জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে মাহফুজকে

মঙ্গলবার, ১৮ জুলাই ২০১৭

কাগজ প্রতিবেদক : গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্তোরায় জঙ্গি হামলায় গ্রেনেড সরবরাহকারী নব্য জেএমবির সোহেল মাহফুজ ওরফে হাতকাটা মাহফুজকে জিজ্ঞাসাবাদ ও জঙ্গিবাদ বিষয়ে আলোচনা করতে ঢাকায় এসেছেন ভারতের সর্বোচ্চ কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা ন্যাশনাল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সির (এনআইএ) গোয়েন্দারা। গতকাল সোমবার সকালে তিন সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নামে। পরে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেন তারা।

বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে পুলিশ সদর দপ্তরের গোয়েন্দা ও আন্তর্জাতিক বিষয়ক শাখার এআইজি মো. মনিরুজ্জামান জানান, এনআইএ’র সঙ্গে জঙ্গিবাদ ও হাতকাটা মাহফুজ বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। এ ছাড়া গ্রেপ্তার হওয়া দুই দেশের জঙ্গিদের বিষয়েও কথা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, আমরা জানতে চেয়েছি জঙ্গিদের ভেতর এদেশ থেকে কারা ভারতে গিয়েছেন। তাদের অস্ত্র ও বিস্ফোরকের উৎস কী। তাদের মদদ দিচ্ছে কারা। এআইজি আরো বলেন, পশ্চিমবঙ্গের বর্ধমানের খাগড়াগড়ে যে বিস্ফোরণ ঘটেছিল সেই মামলার মোস্ট ওয়ানটেড আসামি নাসিরউল্লাহ ওরফে হাতকাটা নাসিরুল্লাহ। এনআইএ’র কাছে এই বিষয়ে কিছু তথ্য রয়েছে বলে আমাদের জানানো হয়েছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদে বিষয়গুলো আরো পরিষ্কার হবে।

এর আগে গত শনিবার কলকাতা স্পেশাল টাস্ক ফোর্স (এসটিএফ) ঢাকায় আসে। তারাও পুরাতন ও নতুন জেএমবির বিষয়সহ নাসিরুল্লাহ সম্পর্কেও জানতে চেয়েছে।

পশ্চিমবঙ্গের বর্ধমানের খাগড়াগড়ে যে বিস্ফোরণ ঘটেছিল, তাতে সব মিলিয়ে মোট ৩০ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দেয় এনআইএ। ঘটনায় ১০ জন ফেরার দেখানো হয়। চার্জশিটে থাকা ৩০ জনের মধ্যে ৬ জন বাংলাদেশি। এর মধ্যে সাজিদ ও শরিফুলকে গ্রেপ্তার করে এনআইএ। কওসার, তালহা শেখ, সইদুল ও নাসিরুল্লাহর খোঁজ চলছিল। নাসিরুল্লাহর মাথার দাম ১০ লাখ টাকা ধার্য করা হয়েছিল।

দ্বিতীয় সংস্করন'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj