আউশ ধানক্ষেতে অজ্ঞাত পোকার আক্রমণ চাষির মাথায় হাত

বুধবার, ৩০ আগস্ট ২০১৭

ইসমাইল হোসেন বাবু, ভেড়ামারা (কুষ্টিয়া) থেকে : আউশ ধানের ফসলি ক্ষেতে হঠাৎ নতুন ধরনের পোকার আক্রমণ হওয়ায় দিশেহারা হয়ে পড়েছে কৃষকরা। কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার কামালপুর গ্রামের চাষি শহিদুল জোয়াদ্দারের প্রায় ৪ বিঘা জমির আউশ ধানক্ষেতে অজ্ঞাত পোকার আক্রমণে নষ্ট হয়েছে। ভুক্তভোগী কৃষক জানান, পোকায় ধানের রস খেয়ে ফেলার কারণে প্রায় লক্ষাধিক টাকা ক্ষতি হয়েছে। দৌলতপুর কৃষি অফিসার মোশারফ হোসেন ও উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা ইউনুস আলীর সঙ্গে কথা হলে তারা জানান, ধানে এই পোকার আক্রমণ মারাত্মক। এই পোকা আগে কখনো এই এলাকায় দেখা যায়নি। পরে জানা যায়, এই পোকার নাম টাইগার বিটল। মারাত্মক এ পোকার আক্রমণ বিষয়ে কৃষকদের সচেতন করার পাশাপাশি গ্রাম-গঞ্জে, পাড়া-মহল্লায় গিয়ে কৃষকদের কাছে অজ্ঞাত এ পোকার নাম জানানো হয়নি। এমনকি পোকা আক্রমণ করলে দমন করার লক্ষ্যে কী ধরনের উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে সে বিষয়েও প্রচারণা চালানো হয়নি।

সংশ্লিষ্ট কৃষি কর্মকর্তাদের এ বিষয়ে কার্যকরী তেমন কোনো উদ্যোগ না থাকায় কৃষকরা চরম হতাশায় ভুগছেন। গ্রামের কৃষক শরিফুল ইসলাম, ছালাম, আলিমদ্দীন জানান, আমার জীবনে এ ধরনের পোকার আক্রমণ আগে কখনো দেখিনি। এই এলাকায় এ পোকা দমনে কোনো কীটনাশক পাওয়া যায় না বলে দোকানদাররা জানান। এই পোকা ধানের থোড় (বাইল) চুষে খেয়ে ফেলছে। ফলে থোড় থেকে ধান হওয়ার কোনো সম্ভাবনা থাকছে না।

এ ব্যাপ্যারে কথা হয় ময়মনসিংহের বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের কীটতথ্য বিভাগের প্রফেসর মাহবুবা জাহানের সঙ্গে। পোকার নমুনা দেখে তিনি বলেন, পোকার নাম টাইগার বিটল। এই পোকা ধানের পরাগরেণু খেয়ে ফেলে। ফলে ধান চিটা হয়ে যায়। তিনি আরো বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে এই পোকাটি শিকারি পোকা থেকে ক্ষতিকর পোকায় পরিণত হয়েছে। বন্যার কারণে পার্শ্ববর্তী দেশ ভারত থেকে আমাদের দেশে এ পোকার আগমন হতে পারে। এ পোকার খোলস খুবই শক্ত হওয়ায় কীটনাশক দিয়েও দমন করা কঠিন। এ পোকা সম্পর্কে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি অবগত করা হয়েছে।

সারাদেশ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj