মুক্তামনির জ্বর মাঝ পথে থামল অপারেশন

বুধবার, ৩০ আগস্ট ২০১৭

কাগজ প্রতিবেদক : হঠাৎ গায়ে প্রচণ্ড জ্বর আসায় বিরল রোগে আক্রান্ত সাতক্ষীরার শিশু মুক্তামনির দ্বিতীয় দফার অপারেশন মাঝ পথেই থামাতে হলো। তার ২৫ শতাংশ অপারেশন সম্পন্ন হয়েছে। বাকিটা ঈদের পর করা হবে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

গতকাল মঙ্গলবার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন এন্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটের সমন্বয়ক অধ্যাপক ডা. সামন্ত লাল সেন। তিনি জানান, বর্তমানে মুক্তামনিকে আইসিইউতে রাখা হয়েছে। সকালে মুক্তামনিকে যখন পর্যবেক্ষণে গিয়েছিলাম তখনো তার শারীরিক অবস্থা এতোটা খারাপ ছিল না। তবে অপারেশন থিয়েটারে নেয়ার পর থেকে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকে। ডা. সেন জানান, সকাল সাড়ে নয়টা থেকে সোয়া ১০টা পর্যন্ত মুক্তামনির অপারেশন হয়েছে। এর পরে প্রচণ্ড জ্বর আসায় অপারেশন বন্ধ করতে হয়। তিনি বলেন, তার ২৫ শতাংশ অপারেশন সম্পন্ন হয়। বাকিটুকু ঈদের পরদিন হতে পারে। তবে এ বিষয়ে গঠিত মেডিকেল টিম বসে সিদ্ধান্ত নিবে।

জ্বর আশার কারণ সম্পর্কে জানতে চাইলে ডা. সেন জানান, অপুষ্টির কারণে মুক্তামনি শারীরিকভাবে দুর্বল এবং তার শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম। এর কারণে মাঝে মাঝে জ্বর আসতেই পারে। তবে তার শারীরিক ভাবে স্বক্ষমতা বাড়াতে আমরা তার খাওয়া-দাওয়ার প্রতি গুরুত্ব দিচ্ছি।

জানা যায়, অপারেশনের আগে শারীরিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ করতে মুক্তামনির কেবিনে যান ঢাকা মেডিকেল কলেজের (ঢামেক) অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. খান আবুল কালাম আজাদ, ঢামেক হাসপাতালের বার্ন এন্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটের সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন, একই ইউনিটের পরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম, জুনিয়র কনসালটেন্ট ডা. শারমিন সুমি।

প্রথম পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj