রাজধানীর মিরপুরে মুখোশধারীর গুলিতে ঠিকাদার নিহত

বুধবার, ৩০ আগস্ট ২০১৭

কাগজ প্রতিবেদক : রাজধানীর মিরপুর শেওড়াপাড়ায় মুখোশধারী দুর্বৃত্তের গুলিতে আনিসুর রহমান আনিস (৪৫) নামে এক ঠিকাদার নিহত হয়েছেন। গত সোমবার রাতে পশ্চিম শেওড়াপাড়ার ইকবাল রোডে এ ঘটনা ঘটে। পরে তাকে উদ্ধার করে মিরপুর মিলিনিয়াম হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক রাত ১টার দিকে মৃত ঘোষণা করেন। স্থানীয় যুবলীগ নেতাদের সঙ্গে দ্ব›েদ্বর জের ধরে তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

নিহতের বন্ধু রবিউল ইসলাম জানান, সোমবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে আনিস এবং তিনি ইকবাল রোডের রুবেল ফার্মেসির সামনে দাঁড়িয়ে কথা বলছিলেন। এ সময় দুজন মুখোশধারী লোক আনিসকে লক্ষ্য করে এলোপাতাড়িভাবে গুলি করে পালিয়ে যায়। রাত সাড়ে ১০টার দিকে গুরুতর অবস্থায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নেয়া হয়। ঢামেকে আইসিইউ না থাকায় রাত সাড়ে ১২টার দিকে মিরপুর মিলিনিয়াম হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। নিহত আনিসুর রহমান পেশায় ইট, বালু ও মাটি সরবরাহকারী। তিনি মিরপুর কাজীপাড়া এলাকায় থাকতেন। তার বাবার নাম তবারক আলী।

রবিউল ইসলাম আরো জানান, ইকবাল রোডে একটি ১০ তলা ভবন নির্মাণকাজের দায়িত্বে ছিলেন আনিস। মিরপুর ১৪নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হুমায়ুন রশিদ জনি এ কাজের দায়িত্ব আনিসকে দিয়েছিলেন। তবে কারা, কী কারণে গুলি করেছে সে বিষয়ে কিছু বলতে পারেননি তিনি।

কাউন্সিলর হুমায়ুন রশিদ জনি জানান, যুব লীগের কমিটি নিয়ে কিছু দিন আগে ওয়ার্ডের সভাপতি মাহবুবুর রহমানের সঙ্গে আনিসুরের কথা কাটাকাটি হয়। এর জের ধরেই এ ঘটনা ঘটতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

মিরপুর মডেল থানার ওসি নজরুল ইসলাম জানান, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে আনিসুরকে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। খুনিদের ধরতে ঘটনার পর থেকেই অভিযান চালানো হচ্ছে। তবে কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। ময়নাতদন্তের জন্য লাশটি ঢামেক মর্গে রাখা হয়েছে। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, আনিসুরের শরীরে চারটি গুলি লেগেছে। এর মধ্যে বাম কানের ওপর দুটি, ডান হাতে একটি এবং পিঠে একটি গুলির চিহ্ন রয়েছে।

দ্বিতীয় সংস্করন'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj