সাপ্তাহিক পুঁজিবাজার চিত্র

রবিবার, ১৪ জানুয়ারি ২০১৮

আগ্রহ হারানোর শীর্ষে আলিফ ম্যানুফ্যাকচারিং

কাগজ প্রতিবেদক : বিদায়ী সপ্তাহে পুঁজিবাজারের বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ হারানোর তালিকায় শীর্ষস্থান দখল করেছে আলিফ ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানি লিমিটেড। বিনিয়োগকারীরা প্রতিষ্ঠানটির শেয়ার কিনতে আগ্রহী না হওয়ায় সপ্তাহজুড়েই দাম কমেছে। এতে প্রতিষ্ঠানটির শেয়ার দামে বড় ধরনের পতন হয়েছে।

আর দাম কমে যাওয়ার কারণে বিনিয়োগকারীদের একটি অংশ কোম্পানিটির শেয়ার বিক্রি করে দিয়েছে। ফলে সপ্তাহজুড়ে কোম্পানিটির ৫১ কোটি ৩৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। আর প্রতি কার্যদিবসে গড় লেনদেন হয়েছে ১২ কোটি ৮৪ লাখ টাকা। অপরদিকে শেয়ারের দাম কমেছে ১৫ দশমিক ৩৮ শতাংশ। টাকার অঙ্কে প্রতিটি শেয়ারে দাম কমেছে ৩ টাকা ৮০ পয়সা। গত সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস শেষে আলিফ ম্যানুফ্যাকচারিংয়ের শেয়ার দাম দাঁড়িয়েছে ২০ টাকা ৯০ পয়সায়। যা তার আগের সপ্তাহ শেষে ছিল ১২৪ টাকা ৭০ পয়সা।

ডিএসইর তথ্য অনুযায়ী, এ কোম্পানিটির মোট শেয়ারের ৩১ দশমিক ৩৫ শতাংশ শেয়ার রয়েছে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের হাতে। বাকি শেয়ারের মধ্যে ৫৬ দশমিক ৯৪ শতাংশ রয়েছে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে। আর প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে আছে ১১ দশমিক ৭১ শতাংশ শেয়ার। এ দিকে শেষ সপ্তাহে আলিফ ম্যানুফ্যাকচারিংয়ের পরই বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ হারানোর তালিকায় ছিল ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন। সপ্তাহজুড়ে এ কোম্পানিটির শেয়ার দাম কমেছে ১৪ দশমিক ৯৭ শতাংশ। এরপরই রয়েছে শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক। সপ্তাহজুড়ে এই কোম্পানিটির শেয়ার দাম কমেছে ৯ দশমিক ৯১ শতাংশ।

ব্যাংক খাতে লেনদেন ১৯ শতাংশ

কাগজ প্রতিবেদক : সমাপ্ত সপ্তাহে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) লেনদেনের শীর্ষে অবস্থান করছে ব্যাংক খাত। ডিএসইতে মোট লেনদেনের ১৯ শতাংশ অবদান রয়েছে এ খাতে। লংকাবাংলা সিকিউরিটিজ লিমিটেড সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। সূত্র মতে, পুরো সপ্তাহে ব্যাংক খাতে ৮২ কোটি ৪৫ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।

প্রকৌশল খাতে ১৮ শতাংশ লেনদেন করে তালিকার দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে। সপ্তাহজুড়ে এই খাতে ৭৬ কোটি ৫৮ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। বস্ত্র খাতে ১৬ শতাংশ লেনদেন করে তালিকার তৃতীয় স্থানে রয়েছে। লেনদেনের শীর্ষে থাকা অন্য খাতগুলোর মধ্যে জ্বালানি-বিদ্যুৎ খাতে ৯ শতাংশ, ওষুধ-রসায়ন খাতে ৮ শতাংশ, আর্থিক খাতে ৫ শতাংশ, সিমেন্ট, বিবিধ ও খাদ্য খাতে ৪ শতাংশ, ট্যানারি, আইটি ও সেবা-আবাসন খাতে ২ শতাংশ করে লেনদেন হয়েছে। এ ছাড়া বিমা, সিরামিক, মিউচুয়াল ফান্ড, ও ভ্রমণ-অবকাশ খাতে ১ শতাংশ করে লেনদেন হয়েছে।

যৌথভাবে কোম্পানি গঠন করবে বার্জার পেইন্টস

কাগজ প্রতিবেদক : পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বিবিধ খাতের কোম্পানি বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশ লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদ যৌথ কোম্পানি গঠন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। গত বৃহস্পতিবার কোম্পানিটির পর্ষদ সভায় বিদেশি একটি কোম্পানির সঙ্গে যৌথভাবে এ কোম্পানি গঠন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কোম্পানি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র মতে, ফসরক ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেডের সঙ্গে যৌথ বিনিয়োগের মাধ্যমে একটি কোম্পানি করবে বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশ লিমিটেড। যৌথ মালিকানা এ কোম্পানির ৫০ শতাংশ শেয়ার থাকে বার্জারের। বাকি ৫০ শতাংশের মালিক হবে ফসরক ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেড। কোম্পানিটি অবকাঠামো নির্মাণ সামগ্রী, কেমিক্যাল ও প্রযুক্তি নির্মাণ ও বাজারজাত করবে। উল্লেখ্য, ২০০৬ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয় বার্জার পেইন্টস লিমিটেড। এ কোম্পানির ৯৫ শতাংশ শেয়ারের উদ্যোক্তাদের নিয়ন্ত্রণে।

লেনদেনের শীর্ষে ইফাদ অটোস

কাগজ প্রতিবেদক : বিদায়ী সপ্তাহে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) লেনদেনের শীর্ষে রয়েছে ইফাদ অটোস লিমিটেড। আলোচ্য সপ্তাহে কোম্পানিটির শেয়ার দর বেড়েছে ৩ দশমিক ৮ শতাংশ। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে। আলোচ্য সপ্তাহে কোম্পানিটির ৭২ লাখ শেয়ার লেনদেন হয়েছে। যার বাজার মূল্য ৯৬ কোটি ৯ লাখ টাকা।

সাপ্তাহিক রিটার্নে দর কমেছে ১৯ খাতে

কাগজ প্রতিবেদক : বিদায়ী সপ্তাহে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) দর (রিটার্ন) কমেছে ১৯ খাতে। অন্যদিকে দর বেড়েছে শুধুমাত্র সিরামিক খাতে। এ খাতে দশমিক ৪ শতাংশ দর বেড়েছে। লংকাবাংলা সিকিউরিটিজ লিমিটেড সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, আলোচ্য সপ্তাহে সবচেয়ে বেশি দর কমেছে ব্যাংক খাতে। এই খাতে ৩ দশমিক ৯২ শতাংশ দর কমেছে। অন্য খাতগুলোর মধ্যে সিমেন্ট খাতে ৩ দশমিক ৭২ শতাংশ, প্রকৌশল খাতে ১ দশমিক ৪ শতাংশ, খাদ্য খাতে দশমিক ১১ শতাংশ দর কমেছে। এ ছাড়া জ্বালানি-বিদ্যুৎ খাতে ২ দশমিক ৮১ শতাংশ, সাধারণ বিমা খাতে ১ দশমিক ৩৮ শতাংশ, জীবন বিমা খাতে ২ দশমিক ৪৯ শতাংশ, আইটি খাতে ৩ দশমিক ৪৩ শতাংশ, পাট খাতে ৩ দশমিক ৪৯ শতাংশ, বিবিধ খাতে দশমিক ৪২ শতাংশ ও আর্থিক খাতে ৩ দশমিক ৭ শতাংশ দর কমেছে।

বিওতে ২১ কোম্পানির লভ্যাংশ

কাগজ প্রতিবেদক : শেষ সপ্তাহে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ২১টি কোম্পানি বিনিয়োগকারীদের বেনিফিশিয়ারি ওনার্স (বিও) হিসাবে লভ্যাংশ পাঠিয়েছে। কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদ সভায় সিদ্ধান্ত নেয়া এ লভ্যাংশ বার্ষিক সাধারণ সভায় অনুমোদন করেন শেয়ারহোল্ডাররা। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ সূত্রে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

শেয়ারহোল্ডারদের বিও হিসাবে লভ্যাংশ পাঠানো কোম্পানিগুলোর মধ্যে- সিভিও পেট্রোকেমিক্যাল ২ শতাংশ লভ্যাংশ দিয়েছে। ৫ শতাংশ করে লভ্যাংশ দিয়েছে জিবিবি পাওয়ার, বেক্সিমকো, বিডি থাই এবং ইয়াকিন পলিমার। আর মিরাকল ইন্ডাস্ট্রিজ লভ্যাংশ দিয়েছে ৭ শতাংশ।

ব্লুক মার্কেটে ৮০ কোটি টাকার লেনদেন

কাগজ প্রতিবেদক : বিদায়ী সপ্তাহে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ব্লুক মার্কেটে মোট ১২ কোম্পানি ও ২ মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ার বা ইউনিট লেনদেন হয়েছে। কোম্পানি ও ফান্ড মিলে মোট ৮৯ লাখ ৮৬ হাজার ৩০৬টি শেয়ার বা ইউনিট লেনদেন হয়েছে। যার আর্থিক মূল্য ৮০ কোটি ৫৯ লাখ টাকা। লংকাবাংলা সিকিউরিটিজ লিমিটেড সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, গত সপ্তাহে ব্লুক মার্কেটে সবচেয়ে বেশি শেয়ার লেনদেন হয়েছে এলআর গ্লোবাল মিউচুয়াল ফান্ড ওয়ানের। এই ফান্ড ৩০ লাখ ইউনিট লেনদেন করেছে। যার আর্থিক মূল্য ২ কোটি ৪৩ লাখ টাকা। ব্লুক মার্কেটে লেনদেনের দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে ব্র্যাক ব্যাংক। কোম্পানিটির মোট ২৭ লাখ ৬৮ হাজার শেয়ার ব্লুকে লেনদেন হয়েছে। যার আর্থিক মূল্য ২৮ কোটি ২৩ লাখ টাকা। তালিকার তৃতীয় স্থানে থাকা গ্রামীণ স্কিম-২ মিউচুয়াল ফান্ড ১০ লাখ ইউনিট লেনদেন করেছে। যার আর্থিক মূল্য এক কোটি ৫৫ লাখ টাকা।

অর্থ-শিল্প-বাণিজ্য'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj