আগ্রাসী সাব্বির

রবিবার, ১৪ জানুয়ারি ২০১৮

ক্রীড়া প্রতিবেদক : আগামীকাল জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে শুরু হবে টাইগারদের ত্রিদেশীয় সিরিজের মিশন। সিরিজের অন্য দল চন্ডিকা হাথুরুসিংহের জিম্বাবুয়ে। টাইগারদের কোচের পদ থেকে বিদায় নিয়ে যিনি শ্রীলঙ্কা দলের দায়িত্ব নিয়ে প্রথম মিশনে এসেছেন বাংলাদেশেই। ওদিকে জিম্বাবুয়ে দলের প্রধান কোচও বাংলাদেশের সাবেক বোলিং কোচ হিট স্ট্রিক। তাই এ দিক থেকে দারুণ একটা রোমাঞ্চ ছড়াচ্ছে সিরিজটি। তবে এসব নিয়ে না ভেবে অতীত ভুলে সামনে তাকাতে চাইছেন সাব্বির। কিছুদিন আগেই তার ওপর দিয়ে বয়ে গেছে এক ঝড়। জাতীয় ক্রিকেট লিগের ম্যাচ চলাকালীন সময়ে দর্শক লাঞ্ছিত করার অভিযোগে তার বিরুদ্ধে ঘরোয়া ক্রিকেট থেকে ছয় মাসের নিষেধাজ্ঞা, নগদ ২০ লাখ টাকা জরিমানা ও জাতীয় দলের চুক্তি থেকে বাদ দেয়ার সুপারিশ করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের শৃঙ্খলা কমিটি।

এগুলো বাংলাদেশ ক্রিকেটের আগ্রাসী ব্যাটসম্যান সাব্বির রহমানের কাছে এখন শুধুই অতীত। যা তিনি আর মনে করতে চাইছেন না। বরং এসব স্মৃতি ভুলে চাইছেন সামনে তাকাতে। আগামীকাল থেকে মিরপুরে শুরু হতে যাওয়া ত্রিদেশীয় সিরিজকে ঘিরেই এখন তার যতো মনোযোগ। এ বিষয়ে তিনি বলেন, মানুষ হিসেবে আমার ওপর এ ঘটনা অনেক প্রভাব ফেলেছে। তবে যদি পেশাদার খেলোয়াড় হিসেবে চিন্তা করি, তাহলে বলব পাস্ট ইজ পাস্ট! যা হওয়ার হয়ে গেছে, এটার প্রভাব যাতে খেলায় না পড়ে, সেটা নিয়ে চিন্তা করছি। চিন্তা করছি ন্যাশনাল টিমকে আমার জায়গা থেকে সেরাটা দিতে। কারণ আমি বাংলাদেশের পতাকা বহন করছি। চেষ্টা করছি ভালো কিছু করার জন্য। ২৬ বছর বয়সী ডানহাতি ব্যাটসম্যান সাব্বির আরো বলেন, পার্সোনালি আমি ভালোভাবেই প্রস্তুত। যদিও গত কয়েকটা ম্যাচ আমার খারাপ গেছে। আমি চেষ্টা করেছি, আমার যেটা দুর্বল জায়গা, সেটা কাটিয়ে ওঠার জন্য। ওটা নিয়ে কাজ করেছি। এখন দেখা যাক, সামনে ম্যাচ আসছে। ভালো করার চেষ্টা করব ইনশাল্লাহ। তবে দুর্বলতার বিষয়ে আসলে সাব্বিরের সেট হয়ে আউট হয়ে যাওয়ার কথা হয়তো বলবেন অনেকেই। তাহলে টেম্পারমেন্টে কি কোনো ঘাটতি রয়েছে তার? সাব্বির অবশ্য মনে করেন এটা তার ব্যাটিং পজিশনের কারণেই হচ্ছে। এ বিষয়ে সাব্বিরের অভিমত, এটা টেম্পারমেন্টের ব্যাপার না। আমার খেলাই আসলে এমন। আগে যখন তিন নম্বরে খেলতাম, তখন ব্যাপারটা অন্য রকম ছিল। এখন ছয়-সাত বা পাঁচ-ছয়ে খেলব। এটা টিম ম্যানেজমেন্টের ব্যাপার। আমি যখন যেখানে খেলার সুযোগ পাব, চেষ্টা করব পরিস্থিতি অনুযায়ী খেলার। এখন আমি চিন্তা করছি, কখন কিভাবে খেলা উচিত তা নিয়ে। যদি উইকেটে থাকি, ম্যাচ ফিনিশ করব। ত্রিদেশীয় সিরিজে তিন নম্বর না মিডল অর্ডার কোন পজিশনে খেলবেন, এটা নিয়ে টিম ম্যানেজম্যান্টের কাছ থেকে পরিষ্কার কোনো ইঙ্গিত পাননি এখনো। তবে সাব্বির জানিয়েছেন, যে পজিশনেই হোক আগ্রাসী খেলাটাই হবে তার ধরন। গত ১০ ম্যাচে তার ফিফটি মাত্র ১টি। গেল বছরের ২৪ মে ডাবলিনে ত্রিদেশীয় সিরিজে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে খেলেছিলেন ৬৫ রানের ইনিংস। এর বাইরে আর কোনো ম্যাচেই ৪০ রানের কোটাও তিনি স্পর্শ করতে পারেননি। তবে ব্যাট হাতে অব্যাহত এই রান খরায় আর আটকে থাকতে চান না তিনি।

খেলা-ধূলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj