জয়ে শুরু যুবাদের

রবিবার, ১৪ জানুয়ারি ২০১৮

ক্রীড়া প্রতিবেদক : আইসিসির অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের গত আসরে নিজের মাটিতে দাপটের সঙ্গে খেলেছিল বাংলাদেশের যুবারা। পুরস্কার হিসেবে অর্জন করেছিল ইতিহাসের সর্বোচ্চ সাফল্য। সেবার টুর্নামেন্টে তৃতীয় স্থানে জায়গা পেয়েছিল মেহেদী হাসান মিরাজের দল। নিউজিল্যান্ডে অনুষ্ঠিত অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের একাদশতম আসরেও নিজেদের দাপট ধরে রাখল জুনিয়র টাইগাররা। ওভালের লিঙ্কন গ্রাউন্ডে গ্রুপ পর্বে নিজেদের ম্যাচে নামিবিয়াকে ৮৭ রানের বিশাল ব্যবধানে হারিয়ে জয় দিয়ে বিশ্বকাপ মিশন শুরু করল বাংলাদেশের যুবারা।

সারাবিশ্বে যখন কনকনে শীত, সেখানে নিউজিল্যান্ডে মুষলধারে বৃষ্টি পড়ছে। বৃষ্টি বাগড়ায় বাংলাদেশ-নামিবিয়ার মধ্যকার ম্যাচটি শুরু হতে অনেক দেরি হয়। এক পর্যায়ে আম্পায়ারদের ইশারায় খেলা মাঠে গড়ালেও ওয়ানডে ম্যাচ বদলে যায় টি-টোয়েন্টিতে। ওই ম্যাচটি ২০ ওভারে হবে বলে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। স্বল্প ওভারের ম্যাচে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন অধিনায়ক সাইফ হাসান। ফলে ব্যাট করতে নেমেই রীতিমতো নামিবিয়ার বোলারদের শাসন করতে থাকেন দুই টাইগার ওপেনার পিনাক ঘোষ এবং মোহাম্মদ নাঈম। পিনাক ঘোষ বেশিক্ষণ টিকতে না পারলেও দারুণ শুরু করে দিয়ে যান। ১৮ বলে খেলে করেন ২৬ রান। এরপরই শুরু নাঈম-সাইফের জুটি। ৯৭ রানের জুটি গড়ার পথে দুজনই তুলে নেন হাফ সেঞ্চুরি। তবে এরপর আর ক্রিজে থাকা হয়নি ওপেনার নাঈমের। আউট হওয়ার আগে নাঈম করেন ৪৩ বলে ৬০ রান, যে ইনিংসটি তিনি সাজিয়েছিলেন ৮ চার ও এক ছক্কায়। আক্রমণাত্মক ব্যাটিংয়ে তাকেও ছাড়িয়ে যান সাইফ। বাংলাদেশের অধিনায়ক খেলেছেন ৮৪ রানের ঝড়ো ইনিংস। ৪৮ বলের ইনিংসটি তিনি সাজিয়েছেন ৩ চার ও ৫ ছক্কায়। আফিফকে সঙ্গে নিয়ে শেষের দিকে কিছু রান সংগ্রহ করেন দলপতি। যুবা অলরাউন্ডার আফিফ হোসেন ১৭ বলে ১১ রান করে প্যাভিলিয়নে ফেরেন। ফলে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৪ উইকেটের বিনিময়ে ১৯০ রান সংগ্রহ করে সাইফ হাসানের দল। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৮৩ রানের ইনিংসটি সাইফের। এ ছাড়া ওপেনার মোহাম্মদ নাঈম করেন ৬০ রান। নামিবিয়ার হয়ে চারজন বোলার একটি করে উইকেট নেন।

১৯১ রানের বিশাল টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে নামিবিয়া। বাংলাদেশি বোলারদের সামনে মাত্র ১২ রানে ৪ উইকেট হারায় দলটি। তখনই আসলে জয় দেখে ফেলেছিল যুবারা। হাসানের বলে মাত্র ৪ রান করে অধিনায়ক লোহান লরেন্স আউট হলে বাংলাদেশ পায় প্রথম উইকেট। খানিক পর রান আউট হয়ে ফেরেন আরেক ওপেনার জার্গেন লিন্ডে। তিনিও করেন মাত্র ৪ রান। আর কাজী অনিকের জোড়া আঘাতে শন ফুচে ও এরিচ ফন মলেনডোর্ফ আউট হলে বাংলাদেশ পেতে থাকে জয়ের সুবাস। তবে মিডলঅর্ডার ব্যাটসম্যান ভেন উইক হাফ সেঞ্চুরি করলে আশার আলো দেখে নামিবিয়া। কিন্তু চ্যালেঞ্জের মুখে টিকে থাকতে পারেননি ভেন উইক। ব্যক্তিগত ৫২ রানে হাসানের বলে বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফেরেন। ফলে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১০৩ রানে থেমে যায় নামিবিয়ার ইনিংস।

বাংলাদেশের হয়ে ২টি করে উইকেট পান কাজী অনিক এবং হাসান মাসুদ। ৮৪ রানের অসাধারণ ইনিংস খেলে ম্যাচ সেরা নির্বাচিত হন টাইগার অধিনায়ক সাইফ হাসান।

এ ছাড়া এদিন আরো তিনটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়। প্রথম ম্যাচে পাকিস্তানকে ৫ উইকেটে হারায় আফগানিস্তানের যুবারা। পাপুয়া নিউগিনিরি সঙ্গে ১০ উইকেটে জয় পায় জিম্বাবুয়ে। আর সাবেক চ্যাম্পিয়নদের ৮ উইকেটে হারিয়ে প্রথম জয় পেল স্বাগতিক নিউজিল্যান্ড।

খেলা-ধূলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj