একাদশ সংসদ নির্বাচন অবাধ ও নিরপেক্ষ হবে : বাণিজ্যমন্ত্রী

রবিবার, ১৪ জানুয়ারি ২০১৮

কাগজ প্রতিবেদক : কোনো সহায়ক সরকার নয়, এই সরকারই আগামী নির্বাচনকালীন তিন মাস অন্তর্বর্তীকালীন সরকার হিসেবে কাজ করবে। তবে তারা কোথাও নির্বাহী ক্ষমতা প্রয়োগ করবে না, নির্বাচন কমিশনই স্বাধীনভাবে ক্ষমতা প্রয়োগ করতে পারবে। একাদশ জাতীয় নির্বাচন অবাধ ও নিরপেক্ষ হবে এবং সেই নির্বাচনে বিএনপিও অংশগ্রহণ করবে।

গতকাল শনিবার ডিবেট ফর ডেমোক্রেসি ও এটিএন বাংলার যৌথ আয়োজনে রাজধানীর এফডিসিতে ইউসিবি পাবলিক পার্লামেন্টের গ্র্যান্ড ফাইনাল অনুষ্ঠানে এক ছায়া সংসদ বিতর্ক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ডিবেট ফর ডেমোক্রেসির চেয়ারম্যান হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ। বিএনপির সহায়ক সরকারের দাবির জবাবে তোফায়েল আহমেদ বলেন, সব দলের অংশগ্রহণের মধ্যে দিয়েই আগামী একাদশ জাতীয় নির্বাচন অবাধ, নিরপেক্ষ এবং গ্রহণযোগ্যভাবে অনুষ্ঠিত হবে এবং সেই নির্বাচনে বিএনপিও অংশগ্রহণ করবে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন এটিএন বাংলা ও এটিএন নিউজের চেয়ারম্যান ড. মাহফুজুর রহমান, ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংকের সাবেক চেয়ারম্যান এম এ সবুর, এটিএন বাংলার উপদেষ্টা নওয়াজিশ আলী খান, এটিএন বাংলার সিনিয়র ভাইস প্রেডিডেন্ট তাশিক আহমেদ।

প্রতিযোগিতায় ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি চ্যাম্পিয়ন হয়। রানারআপ ও তৃতীয় স্থান অধিকার করে যথাক্রমে বিজিএমইএ ইউনিভার্সিটি অব ফ্যাশন এন্ড টেকনোলজি এবং প্রাইম ইউনিভার্সিটি। ২০১৭ সালের এ প্রতিযোগিতায় দেশের সরকারি-বেসরকারি ৩২টি বিশ্ববিদ্যালয় অংশগ্রহণ করে। প্রতিযোগিতা শেষে বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার হিসেবে ট্রফি, ক্রেস্ট ও সার্টিফিকেটসহ চ্যাম্পিয়ন দলকে নগদ ২ লাখ, রানারআপ দলকে ১ লাখ এবং তৃতীয় স্থান অধিকারী দলকে ৫০ হাজার টাকা দেয়া হয়। ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির বিতার্কিকরা হলেন- জান্নাতুল ফেরদৌসী, মো. মাহফুজুল বাশার, কাওছার আলম। বিজিএমইএ ইউনিভার্সিটি অব ফ্যাশন এন্ড টেকনোলজির বিতার্কিকরা হলেন- সৈয়দ খালিদ মাহমুদ, মেহেদী হাসান, ইমন বিশ্বাস শুভ। প্রতিযোগিতায় বিচারক ছিলেন জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক সোমা ইসলাম, অনিমেষ কর, ঝুমুর বারি ও মইনুল হক চৌধুরী।

এই জনপদ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj