ইরান চুক্তি থেকে সরছেন না ট্রাম্প

রবিবার, ১৪ জানুয়ারি ২০১৮

কাগজ ডেস্ক : ছয়টি বিশ্বশক্তির সঙ্গে ইরানের ২০১৫ সালে করা পারমাণবিক চুক্তিটি আপাতত বহাল রাখছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তবে এটাই শেষ সুযোগ বলে দেশটিকে সতর্কও করে দিয়েছেন তিনি। অন্যদিকে হোয়াইট হাউসের কর্মকর্তারা বলেছেন, শিগগিরই চুক্তিটি পরিবর্তন না হলে ট্রাম্প এটি বাতিল করবেন। খবর বিবিসি।

এদিকে চুক্তির শর্ত অনুযায়ী কিছু দিনের জন্য মার্কিন নিষেধাজ্ঞা থেকেও ছাড় পাবে ইরান। নিষেধাজ্ঞার যে ছাড়পত্রে ট্রাম্প সই করবেন তাতে ইরানে আরো ১২০ দিনের জন্য স্থগিত থাকবে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা। একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেছেন, ট্রাম্প চান মার্কিন কংগ্রেস এবং ইউরোপীয় মিত্র দেশগুলো ১২০ দিনের মধ্যে চুক্তিটি আরো পাকাপোক্ত করুক। তা না হলে শেষ পর্যন্ত এ চুক্তি থেকে বেরিয়ে যাবে যুক্তরাষ্ট্র। ইরানের ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণ কর্মসূচির ওপর স্থায়ী কড়াকড়ি আরোপ করতে চুক্তি স্বাক্ষরকারী ইউরোপীয় ইউনিয়নের দেশগুলোর সঙ্গে একটি পাকা চুক্তি চাইছে হোয়াইট হাউস। বর্তমান চুক্তির সময়সীমা বেঁধে দেয়া আছে ২০২৫ সাল পর্যন্ত। ২০১৫ সালে বিশ্বের শক্তিধর ছয়টি দেশ যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, চীন, রাশিয়া, জার্মানি ও ফ্রান্সের সঙ্গে ওই চুক্তি স্বাক্ষর করে ইরান। এর আওতায় ইরান তাদের পারমাণবিক প্রকল্পের কাজ কমানোর প্রতিশ্রæতি দিয়েছিল।

বিভিন্ন বাণিজ্য নিষেধাজ্ঞা ধীরে ধীরে শিথিল করা হবে, এ শর্তেই ইরান তাদের ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণ কর্মসূচি অনেকাংশে কমাতে রাজি হয়। ফলে ইরানের ওপর দশকের পর দশক ধরে আরোপিত পরমাণু সংশ্লিষ্ট মার্কিন নিষেধাজ্ঞা স্থগিত করা হয়। চুক্তির শর্ত অনুযায়ী, মার্কিন প্রেসিডেন্ট প্রতি ১২০ দিন পরপর ওই নিষেধাজ্ঞার ছাড়পত্র সই করতে বাধ্য। কিন্তু ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট হওয়ার পর থেকেই চুক্তিটির কড়া সমালোচনা করে আসছেন। যদিও ইউরোপের শক্তিধর দেশগুলো এ চুক্তিকে আন্তর্জাতিক নিরাপত্তার জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করছে।

ট্রাম্পকে চুক্তি বাতিল না করার আহ্বান জানিয়ে দেশগুলো বলছে, ওই চুক্তির কারণেই বিশ্ব নিরাপদ আছে। ইরানের ওপর সন্ত্রাস, মানবাধিকার এবং ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র উন্নয়নের মতো ক্ষেত্রগুলোতে এখনো পৃথক নিষেধাজ্ঞা দিয়ে রেখেছে যুক্তরাষ্ট্র।

এই জনপদ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj