দ্বিতীয় পর্ব শুরু ১৯ জানুয়ারি : বিশ্ব ইজতেমার আখেরি মোনাজাত আজ

রবিবার, ১৪ জানুয়ারি ২০১৮

এম নজরুল ইসলাম ও এম এ কাশেম রানা, টঙ্গী (গাজীপুর) থেকে : আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে ৫৩তম বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব শেষ হচ্ছে আজ। মোনাজাতে অংশ নিতে গতকাল সন্ধ্যা থেকেই দূর-দূরান্ত থেকে মুসল্লিরা ট্রেন, বাস, ট্রাক, লঞ্চ, নৌকা ও হেঁটে ইজতেমাস্থলে আসতে শুরু করেন। ইজতেমা ময়দানে আসার এ ¯্র্েরাত মোনাজাতের আগ পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছে ইজতেমা আয়োজক কমিটি।

দেশ-বিদেশের লাখ লাখ ধর্মপ্রাণ মুসল্লির উপস্থিতিতে ইবাদত, বন্দেগি, জিকির, আসকার আর আল্লাহু আকবার ধ্বনিতে মুখর এখন টঙ্গীর তুরাগ পাড়ের ইজতেমা ময়দান।

গতকাল শনিবার ইজতেমার দ্বিতীয় দিনে লাখ লাখ মুসল্লির উপস্থিতিতে অব্যাহত থাকে পবিত্র কোরআন হাদিসের আলোকে বিশ্ব তাবলিগ জামাতের জ্যেষ্ঠ মুরুব্বিদের বয়ান।

গতকাল বাদ ফজর বয়ান করেন বাংলাদেশের মাওলানা মো. নূরুর রহমান। বাদ জোহর বয়ান করেন বাংলাদেশের মাওলানা ড. মো. জাহাদ ও মাওলানা ফারুক হোসেন। এসব বয়ান বাংলাসহ বিভিন্ন ভাষায় তাৎক্ষণিক তরজমা করে মুসল্লিদের শোনানো হয়। ইজতেমা মাঠে গত দ্ইুদিন ইবাদত-বন্দেগিতে মগ্ন থাকেন লাখ লাখ দেশি-বিদেশি মুসল্লি। প্রতিদিন ফজর থেকে এশা পর্যন্ত ইজতেমা মাঠে ঈমান, আমল, আখলাক ও দ্বীনের পথে মেহনতের ওপর আম বয়ান করা হয়। গতকাল বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় দিনে দেশ-বিদেশ থেকে আসা মুরব্বিরা তাবলিগের ছয় ওছুলের মধ্যে দাওয়াতে দ্বীনের মেহনতের ওপর গুরুত্বারোপ করে বয়ান করেন।

হিমেল হাওয়া আর কনকনে শীত উপেক্ষা করে লাখো মুসল্লি বয়ান, তাশকিল, তাসবিহ-তাহলিলে জিকির-আসকার করে ইবাদত বন্দেগিতে সময় কাটান। তবে তীব্র শীতের কারণে বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া মুসল্লিদের প্যান্ডেলের বাইরে যেতে দেখা যায়নি। ইজতেমা ময়দানের আশপাশের সড়ক মহাসড়কগুলোতে গতকাল যানজটের সৃষ্টি হয়নি। খাবার ও ওষুধপত্রের প্রয়োজন হলে মুসল্লিদের প্যান্ডেলের বাইরে আশপাশের দোকানগুলোতে ভিড় করতে দেখা যায়। তবে ইজতেমা ময়দানের আশপাশের খাবার দোকানগুলোতে চড়া দামে খাবার বিক্রি হচ্ছে। আর টঙ্গীর কাঁচাবাজারগুলোতে তরিতরকারি ও মাছের দাম আকাশ ছোঁয়া। আখেরি

মোনাজাত এবার বাংলায়

তাবলিগ জামাতের আখেরি মোনাজাত ও হেদায়েতি বয়ান বাংলায় দেয়া করা হবে বলে ইজতেমা সূত্রে জানা গেছে। তাবলিগের দায়িত্বশীল মুরব্বি গিয়াসউদ্দিন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, তাবলিগ জামাতের শীর্ষ মুরব্বিদের বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেয়া করা হয়।

এবারের বিশ্ব ইজতেমায় আখেরি মোনাজাতের আগে হেদায়েতি বয়ান পেশ করবেন বাংলাদেশের মাওলানা আবদুল মতিন। আর আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করবেন কাকরাইল মারকাজের মুরব্বি মাওলানা হাফেজ

মোহাম্মদ জোবায়ের। আজ সকাল ১০টা থেকে ১১টার মধ্যে ইজতেমার প্রথম পর্বের আখেরি মোনাজাত শুরু হবে বলে ইজতেমা সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সূত্র থেকে জানা গেছে।

মুসল্লিদের সন্তুষ্টি : ঢাকা থেকে আসা মোকসেদ আলী অবস্থান করছেন ৩ নম্বর খিত্তায়। তিনি বলেন, এবার ইজতেমায় মুসল্লির সংখ্যা গতবারের চেয়ে অনেক কম। খিত্তাগুলোতে জায়গা খালি। মাওলানা সা’দ এবারের ইজতেমায় না আসা এবং শৈত্যপ্রবাহের কারণে মুসল্লির সংখ্যা কম বলে তিনি মনে করছেন।

পঞ্চগড়ের হোসেন মোল্লা বলেন, গত ইজতেমার চেয়ে এই ইজতেমায় ব্যাপক প্রস্তুতি সরকার নিয়েছে। ওজু, গোসল ও পয়ঃনিষ্কাশনসহ সার্বিক ব্যবস্থাপনায় তিনি সন্তুষ্ট। ইজতেমা ময়দানের ভেতরে ও বাইরে নিরাপত্তা ব্যবস্থা বেশ সন্তোষজনক বলেও তিনি জানান।

গাজীপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মাহমুদ হাসান জানান, গতকাল পর্যন্ত ১৯ হাজার ৫০০ বিদেশি মুসল্লি ইজতেমা ময়দানে যোগ দিয়েছেন। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ১০টি ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হচ্ছে। এ পর্যন্ত দুটি বেকারিকে পাঁচ হাজার টাকা করে দশ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

মালয়েশীয় নাগরিকের মৃত্যু

বিশ্ব ইজতেমায় শুক্রবার রাতে এক বিদেশি মুসল্লির মৃত্যু হয়েছে। তার নাম নূরহান বিন আবদুর রহমান (৫৫)। তিনি মালয়েশিয়ার নাগরিক।

ইজতেমা সূত্র জানায়, শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে নুরহান বিন আবদুর রহমান বিদেশি নিবাসে অসুস্থ হয়ে পড়লে দ্রুত তাকে টঙ্গী শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এ নিয়ে ইজতেমায় এক বিদেশিসহ চার মুসল্লি মারা গেলেন।

উল্লেখ্য, ১২ জানুয়ারি বাদ ফজর থেকে তাবলিগ জামাতের শীর্ষ মুরব্বিদের আমবয়ানের মাধ্যমে তিন দিনব্যাপী বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব শুরু হয়। আজ আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব শেষ হবে। মাঝে ৪ দিন বিরতি দিয়ে আগামী ১৯ জানুয়ারি থেকে তিন দিনব্যাপী দ্বিতীয় পর্বের বিশ্ব ইজতেমা শুরু হবে। ২১ জানুয়ারি রবিবার আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হবে ২০১৮ সালের বিশ্ব ইজতেমা।

শেষ পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj